লিবিয়ার অন্তর্বর্তী জাতীয় পরিষদ শিগগিরই সির্ত শহর সম্পূর্ণভাবে দখল করার কথা ঘোষণার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে. বিভিন্ন তথ্য অনুযায়ী, কর্নেল মুয়ম্মর গদ্দাফির প্রতি বিশ্বস্ততা বজায় রাখা মাত্র একশো থেকে দুশো সৈনিক রয়েছে. এ সম্বন্ধে শুক্রবার জানিয়েছে বৃটেনের “গার্ডিয়ান” পত্রিকা. অন্তর্বর্তী জাতীয় পরিষদের এক যোদ্ধা ইস্মাইল তাভিল আত্মসমর্পন করা দুজন রক্তাক্ত চেহারার কালো চামড়ার সৈনিককে দেখিয়ে বলে, “লড়তে রয়ে গেছে শুধু সত্যিকার সৈনিকরা, ভাড়াটে সৈনিকরা নয়. রয়ে গেছে প্রায় একশো জন, হয়ত তার সামান্য বেশি”. তাভিল বলে, “তারা ১.৫ বর্গ কিলোমিটারের মতো এলাকা ধরে রেখেছে, তাদের যাওয়ার কোনো জায়গা নেই, শুধু সমুদ্রে যেতে পারে. আমরা সন্ত্রাসবাদীদের সাথে আলাপ-আলোচনা চালাই না. আক্রমণ চালিয়ে যাব, যতক্ষণ না তারা আত্মসমর্পণ করছে অথবা ধ্বংস হচ্ছে”. বহু সৈনিক বেসামরিক পোষাক পরে সির্ত থেকে পালিয়েছে শান্তিপূর্ণ অধিবাসীদের সাথে, যাদের আগে শহর ছেড়ে যাওয়ার অধিকার দেওয়া হয়েছিল. সির্ত – ভূমধ্যসাগরের উপকূলে অবস্থিত কর্নেল মুয়ম্মর গদ্দাফির আপন শহর, যা দেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ বন্দরও. বিশেষজ্ঞরা মনে করেন যে, সির্ত দখলের পরে দেশের “সম্পূর্ণ মুক্তির” কথা বলা যাবে এবং লিবিয়ার রাজনৈতিক ও সমাজিক জীবনে নতুন যুগ শুরু হবে.