এশিয়ার সবচেয়ে সুযোগ্য পাত্র ৩১ বছর বয়সী জিগমে নামগিয়াল ওয়াংচুক আজ ২১ বছর বয়সী জেসুন পেমার সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন. ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলি জানাচ্ছে, যে শুভবিবাহ সুসম্পন্ন হয়েছে বৌদ্ধমতে. স্থানীয় সময় ঠিক ৮টা ২০মিনিটে বিবাহের অনুষ্ঠান শুরু হয়. জ্যোতিষীরা লগ্ন নির্ধারণ করেছিলেন. পুনক্ষ শহরে সুপ্রাচীন রাজপ্রাসাদে ভাবী রাণী পদব্রজে পৌঁছায়. রাজা তার জন্য অপেক্ষা করছিলেন, তিনি রাজসিংহাসন থেকে নেমে আসেন তার ভাবী পত্নীকে স্বাগত জানানোর জন্য. রাজা তার মাথায় রাজমুকুট স্থাপন করেন. বিবাহ অনুষ্ঠানের শেষে তার পত্নী হলেন ভূটানের রাণী. সারা বিশ্ব থেকে ১৫০০ অতিথি বিবাহ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল. ভূটানের রাস্তাঘাটে মানুষের ঢল নেমেছে.সর্বত্র রাজদম্পতির প্রতিকৃতি চোখে পড়ছে. রাণী সাধারন পরিবারের মেয়ে হলেও, দেশের অন্যতম সেরা সুন্দরী. জেসুন পড়াশোনা করেছে ভারতে, আর এখন লন্ডনে ইন্টারন্যাশন্যাল রিলেশনশিপ অধ্যয়ন করছে. কয়েকটি ভাষায় সাবলীলভাবে কথা বলে, যার মধ্যে ইংরাজি ও হিন্দীও আছে এবং শিল্পের ইতিহাসের প্রতি তার অনুরাগ.