পাকিস্তানের সরকার দেশে শান্তি পুনর্স্থাপনের জন্য “তহরিক-ই-তালিবান” আন্দোলনের সাথে আলাপ-আলোচনা চালাতে পারে. এ সম্বন্ধে মঙ্গলবার জানিয়েছে স্থানীয় প্রচার মাধ্যম. কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে আলাপ-আলোচনার প্রস্তাব পেলে তালিবদের পরিষদ এমন পরামর্শের স্থান ও সময় সম্বন্ধে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে. তালিবদের প্রতিনিধি সাংবাদিকদের বলে যে, এখনও পর্ষন্ত “তহরিক-ই-তালিবান” দেশের নেতৃবৃন্দের কাছ থেকে আলাপ-আলোচনা সম্পর্কে কোনো প্রত্যক্ষ প্রস্তাব পায় নি. আসন্ন আলাপ-আলোচনার বাধ্যবাধকতা পালনের গ্যারান্টিদাতা হতে পারে সৌদি-আরব এবং অন্যান্য মুসলমান দেশের প্রতিনিধিরা. পাকিস্তানে স্থিতিশীলতা পুনর্স্থাপনের শান্তিপূর্ণ ও সাংবিধানিক পথ সম্পর্কে সরকারের সিদ্ধান্তে এটি ছিল পাকিস্তানী তালিবদের প্রথম প্রতিক্রিয়া. তালিবদের সাথে সরকারী ইস্লামাবাদের আলাপ-আলোচনা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তীব্র অসন্তোষ জাগাতে পারে. ২০১০ সালে ওয়াশিংটন “তহরিক-ই-তালিবান” আন্দোলনকে সন্ত্রাসবাদী সংস্থার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে.