সিরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের সাথে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আহমেত দাউতওগলুর সাক্ষাতের ঘটনা অস্বীকার করেছে, যে সাক্ষাতে আসদ নাকি ইস্রাইলের উপর আঘাত হানার ভয় দেখিয়েছেন. খবরে বলা হয়েছে, কিছু কিছু প্রচার মাধ্যমের তত্সংক্রান্ত তথ্য - মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন. পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে রাষ্ট্রপতির শেষ সাক্ষাত্ হয়েছিল আগস্ট মাসে, এবং তাতে কোনো পক্ষই কোনো বার্তা অর্পন করে নি”. দলিলে উল্লেখ করা হয়েছে, “দেশের বিরুদ্ধে প্রচারিত কোনো রটনা সিরিয়ার স্থিতির বাস্তবতা প্রভাবিত করতে পারবে না”. ইরানের “ফার্স” তথ্য এজেন্সি গত মঙ্গলবার দাউতওগলুর সাথে আসদের সাক্ষাতের কথা ঘোষণা করেছিল, যাতে সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি নাকি ছয় ঘন্টার মধ্যে নিকট প্রাচ্যে যুদ্ধ বাধানোর প্রস্তুতির কথা ঘোষণা করেন. খবরে বলা হয়েছিল, “যদি সিরিয়া আরব প্রজাতন্ত্রের বিরুদ্ধে “অভাবিত পাগলামির” ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়, তাহলে তেল-আভিভ ও গোলান মালভূমির উপর শত শত রকেট বর্ষণের জন্য আমার ছয় ঘন্টার বেশি সময় লাগবে না, আর ন্যাটো জোটের আক্রমণের ক্ষেত্রে সিরিয়ার শাসনকে সমর্থন করা ইরান পারস্য উপসাগরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধজাহাজ “আক্রমণ” করবে”.