মিশরের কর্তৃপক্ষ এই শুক্রবারে পরবর্তী প্রতিবাদ অভিযানের আয়োজকদের এ মিছিলের নিরাপত্তা ও শান্তিপূর্ণ চরিত্রের জন্য দায়িত্ব সম্পর্কে সতর্ক করে দিয়েছে. পরম্পরাগতভাবে শুক্রবারের নমাজের পরে দিনের দ্বিতীয়ার্ধে শুরু হবে “বিপ্লবের প্রত্যাবর্তন” নামে অভিযান. মিশরের সর্বোচ্চ সামরিক পরিষদে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে যে, মিছিলের সময় নিরাপত্তা ও সামরিক কর্মীদের বিরুদ্ধে যেকোনো হিংসাত্মক ক্রিয়া কঠোরভাবে দমন করা হবে. পরবর্তী “লক্ষ-লক্ষের” মিছিলের জন্য সামাজিক নেটওয়ার্কের মাধ্যমে আহ্বান জানিয়েছে যুব বিপ্লবী আন্দোলন সঙ্ঘ. তাদের দাবির মধ্যে আছে – সামরিক ট্রাইব্যুনাল বাতিল করা, শেষ প্রতিবাদ আন্দোলনগুলির সময় বিশৃঙ্খলার জন্য গ্রেপ্তার করা সকলের মুক্তি, নির্বাচন সংক্রান্ত আইনের সংস্কার, বাক্-স্বাধীনতা এবং প্রচার মাধ্যমের স্বাধীনতা. বড় বড় রাজনৈতিক শক্তি, বিশেষ করে “ভাই মুসলমান” দল ইতিমধ্যে অভিযানে অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকার কথা জানিয়েছে.