বি.বি.সি. জানাচ্ছে, যে সিরিয়ার বিষয়ে ইউরোপীয় সঙ্ঘ নতুন ঘোষণাপত্র প্রকাশ করার প্রস্তাব দিচ্ছে. বৃটেন, ফ্রান্স ও পর্তুগাল প্রণীত এবং মার্কিন-যুক্তরাষ্ট্রের দ্বারা সমর্থিত নতুন প্রকল্পে বাশার আসাদের নেতৃত্বাধীন সরকারের বিরূদ্ধে কোনো শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়নি. যদি শাসকদল বিরোধীদের বিরূদ্ধে অত্যাচার চালিয়ে যায়, শুধু তখনই তাদের বিরূদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে. ঘোষণাপত্র নরম করার কারন হল রাশিয়া ও চীনের সমর্থন পাওয়া, যারা শাস্তিমুলক ব্যবস্থা গ্রহণের পক্ষপাতী নয়. গতমাসে ইউরোপীয় দেশগুলি বাশার আসাদ, তার পরিবারের সদস্য ও তার ঘনিষ্ঠ অনুগত লোকেদের বিরুদ্ধে বাধানিষেধ জারী করার প্রস্তাব দিয়েছিল. কিন্তু তখন রাশিয়া ও চীন এই বলে সতর্ক করে দেয়, যে সিরিয়ার বিরূদ্ধে বাধানিষেধ জারী করা হলে তারা নিরাপত্তা পরিষদে ভেটো দেবে. আরও কয়েকটি বড় দেশ, যাদের ভেটো দেবার অধিকার নেই, যেমন ভারত, ব্রাজিল ও দক্ষিণ আফ্রিকাও সিরিয়ায় বিদেশী হস্তক্ষেপের পুরোপুরি বিরোধী.