রাশিয়ার মন্ত্রীসভায় অর্থনৈতিক দপ্তরের দায়ভার পরিচালনা করবেন ইগর শুভালভ, তিনি আলেক্সেই কুদরিনের জায়গা নেবেন, আর মন্ত্রণালয়ে নেতৃত্ব দেওয়া ও কাজের দায় নেবেন প্রাক্তন মন্ত্রীর সহকারী আন্তন সিলুয়ানভ. এই বিষয়ে মন্ত্রীসভার বৈঠকের শুরুতে আজ রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা করেছেন. এই প্রসঙ্গে পুতিন মন্ত্রীসভার কাজে নিয়মানুবর্তীতা রক্ষা করার দাবী করেছেন উল্লেখ করে যে, দেশ এখন যথেষ্ট জটিল সময়ের মধ্যে দিয়ে যেতে চলেছে.

    আন্তন গেরমানোভিচ সিলুয়ানভ ১৯৬৩ সালের ১২ই এপ্রিল মস্কো শহরে জন্মেছেন. ১৯৮৫ সালে তিনি মস্কোর বিনিয়োগ ইনস্টিটিউটে "বিনিয়োগ ও ঋণ" বিষয়ে পড়াশোনা শেষ করেন. তিনি অর্থনীতিতে ডক্টরেট ও জার্মান ভাষা জানেন. সেনা বাহিনীতেও কাজ করেছেন.

    ইনস্টিটিউটে পড়াশোনা শেষ করার পরে অর্থ মন্ত্রণালয়ে কাজ করতে শুরু করেছিলেন. তিনি সিনিয়র ইকনমিস্ট, বাজেট দপ্তরের প্রধানের সহকারীর কাজ করেছেন, ২০০৩ সালে তিনি ম্যাক্রো ইকনমিক পলিসি ও ব্যাঙ্ক অ্যাফেয়ার্স বিভাগের প্রধান নিযুক্ত হয়েছিলেন.

২০০৩ সালেই তাঁকে সহকারী অর্থমন্ত্রী পদ দেওয়া হয়েছিল, ২০০৪ থেকে ২০০৫ সাল তিনি বাজেট অন্তর্বর্তী সম্পর্ক বিষয়ের দপ্তরের ডিরেক্টর হয়েছিলেন. ২০০৫ সাল থেকে তিনি সহকারী অর্থমন্ত্রী পদে রয়েছেন.

এর আগে রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ অর্থমন্ত্রী আলেক্সেই কুদরিনের পদত্যাগ নির্দেশ পত্রে স্বাক্ষর করেন, এই ধরনের কঠোর সিদ্ধান্তের কারণ ছিল মন্ত্রীর কিছু মন্তব্য, যা তিনি ওয়াশিংটনে থাকা অবস্থায় করেছিলেন. উপ প্রধানমন্ত্রী এবং অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রধান ঘোষণা করেছিলেন তাঁর সামরিক খাতে খরচের বিষয়ে মত বিরোধ নিয়ে. তিনি দেশে যে ভাবে পেনশন ব্যবস্থায় সংশোধন করা হচ্ছে, তাতেও সহমত নন. একই সঙ্গে কুদরিন বলেছেন যে, তিনি নিজেকে নতুন মন্ত্রীসভায় দেখতে পাচ্ছেন না, কিন্তু তৈরী আছেন যে কোন ধরনের পদে থাকতে, যা দিয়ে দেশের আর্থিক ব্যবস্থায় সংশোধন করা সম্ভব হয়.

এই ধরনের খোলাখুলি মন্তব্যের কারণ হয়েছিল মস্কো থেকে পাওয়া খবর যে, "ঐক্যবদ্ধ রাশিয়া" দলের সম্মেলনে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে, বর্তমানের প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন ২০১২ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রার্থী হবেন ও রাষ্ট্রপতি মেদভেদেভ আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে এই দলের প্রার্থী তালিকার প্রথমে রয়েছেন, যদি দল যেতে তাহলে তিনি মন্ত্রীসভার দায়িত্ব নেবেন.

রাষ্ট্রপতির তরফ থেকে কুদরিনের মন্তব্যে প্রতিক্রিয়া হয়েছে সোমবারে. ওয়াশিংটনে কুদরিনের করা ঘোষণাকে মেদভেদেভ বলেছেন অসভ্য ও বিশ্বাসঘাতকতা করার মতো কাজ. "নতুন মন্ত্রী সভা নেই, আমন্ত্রণ পত্র এখনও কেউই দেয় নি. এখনও পুরানো মন্ত্রীসভাই কাজ করছে, যারা রাষ্ট্রপতির কাছে জবাবদিহি করতে বাধ্য" – বলে মনে করিয়ে দিয়েছেন দিমিত্রি মেদভেদেভ. তিনি মন্ত্রীকে পদত্যাগ পত্র লিখতে প্রস্তাব করেন, যদি তিনি রাষ্ট্রপতির অর্থনৈতিক নীতির সঙ্গে একমত না হন.