রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ অর্থমন্ত্রী আলেক্সেই কুদরিনের পদত্যাগ পত্রে স্বাক্ষর করেছেন. এই খবরটি এক তথ্য বোমায় পরিনত হয়েছে. এত বড় মাপের পদত্যাগ রাশিয়ার রাজনীতিতে বহুদিন হয় নি.

কুদরিন এর আগে ঘোষণা করেছিলেন যে, তিনি নতুন মন্ত্রীসভায় কাজ করবেন না, যা রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের পরে আগামী বছরের নেতৃত্ব দিতে পারেন বর্তমানের রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ.

ভোলগা তীরের দিমিত্রভগ্রাদে আধুনিকীকরণ সম্বন্ধে পরিষদের বৈঠকের শুরুতে দেশের নেতা মন্ত্রীসভায় নিয়মানুবর্তীতা সম্বন্ধে উপস্থিত লোকেদের মনোযোগ আকর্ষণ করেন. "আমি মন্ত্রীসভায় নিয়মানুবর্তীতা সম্বন্ধে কয়েকটি কথা বলতে চাই". এই কথা বলে দিমিত্রি মেদভেদেভ অর্থমন্ত্রীর উদ্দেশ্য আরও বলেন যে, আমরা প্রাক্ নির্বাচনী সময়ে উপস্থিত হয়েছি, এটা সকলের স্নায়ু ও ঘোষণাতেই প্রভাব ফেলেছে. আলেক্সেই লিওনিদোভিচ কুদরিন, যিনি এখানে উপস্থিত রয়েছেন, বলেছেন যে, তিনি নতুন মন্ত্রীসভার সঙ্গে কাজ করতে তৈরী নন. তিনি বলেছেন যে, কুদরিনের উচিত্ পদত্যাগ পত্র লেখা, যদি তিনি রাষ্ট্রপতির অর্থনৈতিক নীতির সঙ্গে একমত না হন. মেদভেদেভ মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, সরকার চলে রাষ্ট্রপতির পথেই, তাই অর্থমন্ত্রীর, যিনি এই নীতির সঙ্গে একমত নন, তাঁর শুধু একটাই পথ খোলা রয়েছে – পদত্যাগ করা.

    কুদরিন সমর্থন করেছেন যে, তাঁর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে মত বিরোধ রয়েছে, কিন্তু আবেদন পত্র লিখবেন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেই. "আপনি যার সাথে খুশী আলোচনা করতে পারেন, তার মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেও, কিন্তু আপাততঃ আমি রাষ্ট্রপতি, আর এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিজেই নিয়ে থাকি. আপনার খুব দ্রুত ঠিক করতে হবে আর আজকেই আমাকে উত্তর দিতে হবে: অথবা যদি আপনি মনে করেন যে, আপনি যে মত বিরোধের কথা বলছেন, তা আসলে নেই, তবে আপনাকে এই প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে হবে" – বলে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করেছেন. উনি একই সঙ্গে বলেছেন যে আগামী বছরের ৭ই মে অবধি সমস্ত সিদ্ধান্ত নিজেই নেবেন. রাশিয়াতে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন হবে মার্চ মাসে, নতুন রাষ্ট্রপতি তাঁর কার্যভার নেবেন মে মাসের শুরুতে.

    ২০১২ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভ্লাদিমির পুতিন যে প্রার্থী হবেন, আর দিমিত্রি মেদভেদেভ "ঐক্যবদ্ধ রাশিয়া" দলের আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী তালিকায় প্রথমে থাকবেন ও পরে মন্ত্রীসভায় চলে যাবেন, এই কথা তাঁরা শনিবারে ক্ষমতাসীন দলের সম্মেলনে ঘোষণা করেছিলেন.

    মেদভেদেভ কুদরিনের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আগামী মন্ত্রীসভায় কাজ করতে না চাওয়ার ঘোষণাকে অসভ্য ও সত্যের প্রতি নিষ্ঠা রেখে করা হয় নি বলে উল্লেখ করেছেন. রাষ্ট্রপতির কথামতো, নতুন মন্ত্রীসভা নেই, তাতে আমন্ত্রণ পত্র এখনও কেউ কাউকে দেয় নি. পুরানো মন্ত্রীসভা কাজ করছে, যারা রাষ্ট্রপতির কাছে দায়বদ্ধ, বলে তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন.

    উপ প্রধানমন্ত্রী ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রধান ওয়াশিংটনে সামরিক খাতে খরচ বাড়ানো নিয়ে তাঁর মতান্তরের কথা ঘোষণা করেছিলেন, যা ২০১৪ সাল অবধি শিক্ষা খাতে ব্যয়ের চেয়ে বেশী. তিনি যে ভাবে পেনশন ব্যবস্থায় সংশোধন করা হচ্ছে, তা নিয়েও সন্তুষ্ট নন. কুদরিন একাধিকবার খনিজ তেলের দাম কমে গেলে যে সম্ভাব্য ক্ষতি তা ভর্তুকি দেওয়ার জন্য করের মাত্রা বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছিলেন. ওয়াশিংটনেই তিনি বলেছেন যে, নিজেকে নতুন মন্ত্রীসভায় দেখতে পাচ্ছেন না, কুদরিন বলেছেন যে, যে কোন ধরনের পদই তিনি নিতে রাজী আছেন, "যা দেশে সংশোধন করতে সাহায্য করবে".

    দিমিত্রি মেদভেদেভের কথামতো, আলেক্সেই কুদরিন আগেও নিজের রাজনৈতিক অবস্থান ঠিক করতে পারতেন ও "সঠিক কাজের" দলে নেতৃত্ব দিতে পারতেন. বসন্ত কালে এই ধরনের প্রস্তাব অর্থমন্ত্রীকে করা হয়েছিল, কিন্তু তখন তিনি রাজী হন নি এই বলে যে, মন্ত্রীসভায় তিনি বেশী করে কাজ করতে পারবেন.

    তখন "সঠিক কাজের" দক্ষিণ পন্থী দলের নেতৃত্ব করতে এসেছিলেন বহু কোটি পতি মিখাইল প্রোখোরভ, যিনি দলের মধ্যে বিরোধের পরে দল ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছেন. এর আগে জানা গিয়েছে যে, প্রোখোরভ কে আধুনিকীকরণ সংক্রান্ত পরিষদের সদস্য তালিকা থেকেও বাদ দেওয়া হয়েছে.