রাশিয়ার লোকসভাতে সবচেয়ে বেশী সদস্য পদের অধিকারী "ঐক্যবদ্ধ রাশিয়া" দলের প্রাক্ নির্বাচনী সম্মেলন, শুক্রবারে মস্কো শহরে শুরু হয়েছে. দ্বাদশ সম্মেলনের প্রতিনিধিদের দলের পক্ষ থেকে আগামী ৪ঠা ডিসেম্বরে দেশের লোকসভা নির্বাচনের জন্য প্রার্থী পদের তালিকা স্থির করতে হবে.

    এই সম্মেলনের প্রধান ঔত্সুক্যের বিষয় হল, কে এই তালিকায় প্রথম স্থানে থাকবেন ও "ঐক্যবদ্ধ রাশিয়া" দলের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতি পদের প্রার্থী হিসাবে কোন নাম প্রকাশ করা হবে কি না. "ঐক্যরুশী" দের কাছ থেকে এখনও সরকারি ভাবে কিছু কেই সমর্থন করেন নি, যে প্রার্থী তালিকার এক নম্বরে দলের নেতা ও বর্তমান রাশিয়া প্রজাতন্ত্রের প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন থাকবেন বলে. দলের কর্মীরা শুধু এই বিষয়ে নিজেদের আশাই ব্যক্ত করেছেন.

    সম্মেলন দুই দিন ধরে হবে, ২৩ ও ২৪ সেপ্টেম্বর. প্রথম দিন ঠিক করা হয়েছে জনগনের জন্য দলের পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা ও সমর্থনের জন্য, যে পরিকল্পনা দলের পক্ষ থেকে প্রাক্ নির্বাচনী বলে প্রকাশিত হবে. দ্বিতীয় দিনে প্রতিনিধিরা প্রার্থী তালিকা স্থির করবেন. ঐক্যরুশী দলের লোকেরা আশা করেছেন যে, তাঁদের নেতা প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন এই সম্মেলনে ২৩ ও২৪ শে সেপ্টেম্বর অংশ নেবেন. রুশ প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ দলের সদস্য ও অতিথিদের সামনে ২৪শে সেপ্টেম্বর বক্তৃতা দেবেন.

    সম্মেলন শেষ হবে মিডিয়া সম্মেলন ও মন্ত্রীসভার সদস্যদের অংশগ্রহণ দিয়ে, যা হতে চলেছে রবিবারে ২৫শে সেপ্টেম্বর. একই সঙ্গে দলের উত্স থেকে "ভেদোমস্তি" সংবাদপত্রে ঘোষণা করা হয়েছে যে, প্রধান প্রশ্ন, ট্যান্ডেমের মধ্যে থেকে কে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে অংশ নেবেন, তা এই সম্মেলন ঠিক করবে না. এখনও সময় হয় নি বলে দলের লোকেরা ব্যাখ্যা করেছেন. সেই কারণেই এই সম্মেলন, যেমন চার বছর আগেও হয়েছিল, তেমন করেই দুটি অধ্যায়ে হবে. শনিবারে দিনের দ্বিতীয় ভাগে সভাপতিত্বে থাকা বরিস গ্রীজলভ ঘোষণা করবেন যে, প্রথম অধ্যায় শেষ হল, আর দ্বিতীয় অধ্যায় হবে ডিসেম্বর মাসে. তখনই রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য ক্ষমতাসীন দলের পক্ষ থেকে প্রার্থীর নাম ঘোষণা ও প্রস্তাব করা হবে.

    "ঐক্যবদ্ধ রাশিয়া" দল একটি দক্ষিণ ঘেঁষা মধ্যপন্থী সমাজ ও সংরক্ষণবাদী দল. রাশিয়া এই দলের সদস্য সংখ্যা সর্বাধিক. ২০০৩ সালের নির্বাচনের ফলাফল অনুযায়ী "ঐক্যবদ্ধ রাশিয়া" দল রাশিয়ার লোকসভাতে সর্বাধিক আসন পেয়েছিল আর ২০০৭ সালের নির্বাচনের পরে সংবিধান গত সর্বাধিক আসন.