মঙ্গলবারে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম এই খবর দিয়েছে. মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে, সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত ভারতের সিকিম রাজ্য, যেখানে ইতিমধ্যেই ৫০ জনের মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে, দেড়শ জনেরও বেশী লোক হাসপাতালে. ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, বিহার রাজ্যে কম করে হলেও ১২ জন নিহত, বহু বাড়ী ঘর ভেঙে পড়েছে, নেপালে ও দক্ষিণ তিব্বতেও হতাহত অনেক. গ্যান্টকে শতকরা ৭০ ভাগ বাড়ীই ক্ষতিগ্রস্ত. প্রায় এক লক্ষ ঘর বাড়ী ব্যবহারের অযোগ্য হয়েছে, তার মধ্যে সরকারি বাড়ী ঘরও রয়েছে. লোকে এখন রাস্তাতেই রয়েছেন, যদিও একই সাথে মুষল ধারে বৃষ্টি চলছে ও তাপমাত্রা কমে ৮ ডিগ্রী হয়েছে. নতুন করে ধ্বস নামার ফলে ত্রাণ কর্মীদের কাজে অসুবিধা হচ্ছে. বর্তমানে রাজ্যের প্রধান পরিবহন সড়কে অন্ততঃ চোদ্দটি ধ্বস যান চলাচল ব্যাহত করেছে.