মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা দেশের কংগ্রেসে আলোচনার জন্য আগামী দশ বছরে তিন লক্ষ ষাট হাজার কোটি ডলার বাজেট ঘাটতি কমানোর পরিকল্পনা পেশ করেছেন. এই পরিকল্পনাতে যেমন রিপাব্লিকান পার্টির প্রস্তাবিত সরকারি খরচ কমানোর পরিকল্পনা রয়েছে, তেমনই কর বৃদ্ধির প্রস্তাবও রয়েছে, যার পক্ষে ডেমোক্র্যাটিক দলের লোকেরা মত দিয়েছে. ওবামার প্রস্তাবিত ব্যবস্থা গুলি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ২০১৭ সাল থেকে শুরু করে সরকারি ঋণের পরিমান কমাতে সাহায্য করবে. ২০১২ সাল থেকেই বাজেট ঘাটতি কমানোর চেষ্টা হয়েছে দেশের সার্বিক জাতীয় আয়ের শতকরা ২, ৩ ভাগ. ওবামার পরিকল্পনাতে কর বৃদ্ধির কথা হয়েছে এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার কোটি ডলারের. প্রাথমিক ভাবে, ঠিক করা হয়েছে কর মকুব করা বন্ধ করা হবে, যা রাষ্ট্রপতি জর্জ বুশের সময়ে করা হয়েছিল. এর ফলে বাকি আদায় যোগ্য অর্থের অর্ধেক পাওয়া যেতে পারে. ধনী আমেরিকার লোকেদের জন্য আয়ের উপরে একই মাত্রার কর প্রয়োগের প্রস্তাব করা হয়েছে. এর অর্থ হল, তাদের বিনিয়োগের লাভের উপরে ততটাই কর বসানো হবে, যতটা বেতনের উপরে বসানো হয়ে থাকে. বর্তমানে বিনিয়োগের লাভের উপরে কর মকুব থাকার কারণে দেশের সবচেয়ে বড় লোকেরা (সেখানে এই রকম লোকের সংখ্যা প্রায় সাড়ে চার লক্ষ) গড়ে মধ্যবিত্ত লোকেদের তুলনায় কম মাত্রায় কর দিয়ে থাকে. যেহেতু এই সমস্যা সম্বন্ধে আগে বলেছেন শত কোটি পতি ওয়ারেন বাফেট, তাই ওবামার এই প্রস্তাবকে ডাকনাম দেওয়া হয়েছে বাফেট নিয়ম বলে. তাছাড়া দেশে চিকিত্সা বীমার পরিমান কমানো হবে বলে ঠিক করা হয়েছে. ইরাক ও আফগানিস্তান থেকে সেনা বাহিনী প্রত্যাহার করলে প্রায় ১ লক্ষ ১০ হাজার কোটি ডলার সাশ্রয় হবে.