রাশিয়া মনে করে যে, নিরাপত্তা পরিষদের লিবিয়া সংক্রান্ত ১৯৭৩ নম্বর সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে প্রাপ্ত রাষ্ট্রসঙ্ঘের ম্যান্ডেট ন্যাটো বাহিনী ছাড়িয়ে গিয়েছিল. মস্কো জোর দিয়ে যাবে, যাতে এ ধরণের ঘটনা সিরিয়ায় না ঘটে, বলেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ “ইউরো নিউজ” টেলি-চ্যানেলকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে. রাশিয়ায় সিরিয়ার সমস্যা দেখা হয় ভারসাম্যহীন বল প্রয়োগে, বেশি সংখ্যক হতাহতে – এবং রাশিয়ার তা পছন্দ নয়, উল্লেখ করেন রাষ্ট্রপতি. তবে, সিরিয়ার সরকারের উপর চাপ সৃষ্টির জন্য আন্তর্জাতিক জনসমাজ যে সব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছে, তা বিরোধীপক্ষের জন্যও বলবত্ হওয়া উচিত. সিরিয়ার ঘটনাবলি দ্ব্যর্থহীন নয় এবং বিরোধীপক্ষের দিকে রয়েছে অতি ভিন্ন ভিন্ন ধরণের লোক, উল্লেখ করেন মেদভেদেভ. সেইজন্য রাশিয়া বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গী সমর্থন করতে প্রস্তুত, তবে তা যেন সরকার ও রাষ্ট্রপতি আসদের কার্যকলাপের একতরফা নিন্দের ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠিত না হয়, জোর দিয়ে বলেন মেদভেদেভ. তিনি বলেন, “সঙ্ঘর্ষরত সকলের প্রতি কঠোর সঙ্কেত প্রয়োজন: সমঝোতায় আসা এবং রক্তক্ষয় বন্ধ করা দরকার”. সিরিয়ার আন্তরিক মিত্র দেশ হিসেবে রাশিয়া এতে আগ্রহী. সঙ্কটজনক পরিস্থিতি অতিক্রমের সম্ভাবনার অনুসন্ধান চালিয়ে যাওয়া হবে, স্থিরবিশ্বাস প্রকাশ করেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি.