লিবিয়ার বিদ্রোহীরা বানি-ওয়ালিদ শহরে হাণা দিয়েছে, যা এখনো পর্যন্ত গদ্দাফির অনুগত বাহিণীর দখলে এবং সন্দেহ করা হচ্ছে, যে স্বয়ং গদ্দাফি সেখানেই আত্মগোপণ করে আছেন. বিদ্রোহীরা শহরটিকে ঘিরে ফেলেছে. প্রায় ১৫০টি ট্যাঙ্ক ন্যাটো জোটের বোমাবর্ষণের মুখে না পড়বার উদ্দেশ্যে শহরের থেকে খানিকটা দূরে ঘাঁটি গেড়েছে. অন্তর্বর্তীকালীন জাতীয় পরিষদ গতকাল জানিয়েছে, যে গদ্দাফির সমর্থকদের আত্মসমর্পণ করার জন্য আরও একসপ্তাহ সময় দিতে প্রস্তুত. বর্তমানে অন্তর্বর্তীকালীন জাতীয় পরিষদ ন্যাটো জোটের মদতে ত্রিপোলি সহ লিবিয়ার অধিকাংশ এলাকার ওপর দখল কায়েম করেছে.