এই রিপোর্টের বেশ কয়েকটি অনুচ্ছেদ জুড়ে আপত্তি করার মতো বিষয় রয়েছে. অংশতঃ, মস্কোর কাছে "অবোধ্য ও জানা নেই বলাকে মেনে না নেওয়ার মতো মনে হয়েছে অথবা আমেরিকার বিশেষজ্ঞরা ইচ্ছা করেই তথ্য বিকৃতি করেছেন বলে মনে করা হয়েছে রাশিয়ার তরফ থেকে রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংস করা নিয়ে সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে দায়িত্ব পালন করা সম্বন্ধে রিপোর্টের অংশ". এই বিষয়ে শুক্রবারে প্রকাশিত রুশ পররাষ্ট্র দপ্তরের তথ্য ও প্রচার দপ্তরের মন্তব্যে বলা হয়েছে. আগষ্ট মাসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্র দপ্তর "২০০৯ – ২০১০ সালে আন্তর্জাতিক চুক্তি অনুযায়ী অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ, নিরস্ত্রীকরণ ও অস্ত্র প্রসার রোধের দায়িত্ব পালন" সংক্রান্ত এই রিপোর্ট প্রকাশ করেছে. একই সঙ্গে প্রকাশ করা হয়েছে "ইউরোপে সাধারন সামরিক বাহিনী সংক্রান্ত চুক্তি পালন" এবং "রাসায়নিক অস্ত্র নিষেধ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে রিপোর্ট". এই সমস্ত রিপোর্টে, "অংশতঃ প্রমাণ করার চেষ্টা করা হয়েছে যে, রাশিয়া নিজেদের আন্তর্জাতিক দায়িত্ব পালন করছে না". প্রসঙ্গতঃ "আমেরিকার কূটনীতিবিদেরা এই কাণ্ড প্রথম বার করছেন না, একেবারেই কোন প্রমাণ না দিয়ে ও ফাঁকা আওয়াজের মাধ্যমে". এই কথা বিশেষ করে উল্লেখ করে বলা হয়েছে রুশ পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে. "রাশিয়ার পক্ষ থেকে রাসায়নিক অস্ত্র ধ্বংস ও প্রসার রোধের বিষয়ে সমস্ত আন্তর্জাতিক চুক্তির দায়ভার যো পালন করা হয়েছে, তা একাধিকবার রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধ করণ সংস্থার বিশেষজ্ঞদের দ্বারা প্রমাণিত হয়েছে. আমেরিকার পক্ষ এই সম্বন্ধে অজ্ঞান থাকতে পারে না" – উল্লেখ করেছে পররাষ্ট্র দপ্তর. এই প্রসঙ্গে উল্লেখ করা হয়েছে যে, "মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বরং রাসায়নিক ও জৈব বিষাক্ত পদার্থ যুক্ত অস্ত্র সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা পালন প্রায়শঃই প্রশ্নের অবতারণা করতে পারে".