আন্তর্জাতিক ছাত্র ক্রীড়া সংগঠনের পতাকার দৌড় কাজান থেকে শুরু হয়ে রুশ দেশের লক্ষাধিক মানুষের শহর গুলিতে সফরে চলেছে. তার মধ্যে ভোলগা নদীর তীরের অঞ্চলের রাজ্য গুলির রাজধানী যেমন থাকবে, তেমনই থাকবে সেন্ট পিটার্সবার্গ ও মস্কো. এই যাত্রা পথের দৈর্ঘ্য প্রায় সাড়ে চার হাজার কিলোমিটার.

    কাজান ২০১৩ সালে ২৭ তম আন্তর্জাতিক ছাত্র অলিম্পিকের ক্ষেত্র হতে চলেছে, তাই চিনের শেনজেন শহরের সদ্য সমাপ্ত প্রতিযোগিতার পর থেকে এখানেই থাকবে ইউনিভার্সিয়াডের পতাকা. তাতারস্থানের রাজধানীতে ২৪শে আগষ্ট এই পতাকা প্রাপ্তি দিবস পালিত হয়েছে, আর তার পাঁচ দিন পরেই এই শহরের জন্মদিনে পতাকাটি দেশের সবচেয়ে বড় শহর গুলির উদ্দেশ্য রওয়ানা হয়েছে.

    কাজানের সহস্রাব্দ চকে এই উপলক্ষে এক উত্সব অনুষ্ঠিত হয়েছে. "কামাজ – মাস্টার" নামের বিশ্ব বিখ্যাত মালবাহী ট্রাক দৌড়ের দলের সঙ্গে আরও অনেক লোকের তৈরী এক মিছিল ও খেলোয়াড় এবং স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়ে বাস গুলি মঞ্চের কাছে উপস্থিত হওয়া মাত্র প্রবল হর্ষ ধ্বনি দিয়ে স্বাগত জানানো হয়েছিল. এঁরা কয়েকদিন আগেই শেনজেন শহরে ইউনিভার্সিয়াড শেষ হওয়ার অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন. তাতারস্থানের যুব, পর্যটন ও ক্রীড়া মন্ত্রী রাফিস বুর্গানভ তাঁর বক্তৃতায় এই পতাকা নিয়ে দেশ ভ্রমণ যেন সফল হয় সেই আশা প্রকাশ করে বলেছেন:

    "আমার আশা যে এই আন্তর্জাতিক ছাত্র ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পতাকা দেশের যত বেশী সম্ভব শহর যেন পরিভ্রমণ করতে পারে, যাতে এটিকে যত বেশী সম্ভব মানুষ দেখতে পান, ইউনিভার্সিয়াডের আদর্শ যেন সমাজের প্রতিটি স্তরে প্রবেশ করে ও সকলে যেন ২০১৩ সালের প্রতিযোগিতায় সক্রিয় অংশ নেন. এঁদের অনেকেই হয়ত সেই সময়ে কাজান শহরে আসবেন দর্শক হিসাবে খেলোয়াড়দের সমর্থন করতে. আমরা সেই ইউনিভার্সিয়াড সদ্য শেষ হওয়া প্রতিযোগিতার চেয়ে খারাপ আয়োজন করবো না".

    নিজের পক্ষ থেকে কাজান শহরের মেয়র ইলসুর মেতশিন উল্লেখ করেছেন যে, তিনি খুবই আনন্দিত কাজান শহরের সকলের সঙ্গে এই প্রতিযোগিতা নিজেদের শহরে আমন্ত্রণ করতে পেরে. তাই বলেছেন:

    "১৩টি শহরে এই পতাকা পাঠাচ্ছি, আপাততঃ শুধু তেরটি শহর, এই শহর গুলিতে বহু লক্ষ মানুষ বাস করেন ও এখানে রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে. আসুন সকলে হাত তুলে এই পতাকাকে মঞ্চে স্বাগত জানাই".

    ছাত্র লীগের সভাপতি তিমুর সুলেইমানভ কে এই পতাকা অর্পণ করা হয়েছে. আর তার পরে পতাকা যাত্রা শুরু করেছে. প্রথম শহর এই তালিকায় ইঝেভস্ক. গাড়ীর সারির সঙ্গে একসাথে রওয়ানা হয়েছে "রুশ রেল পথ কোম্পানীর" এক বিশেষ ট্রেন ছাত্র ছাত্রী নিয়ে, যারা যুব সংস্থা গুলিতে নেতৃত্ব দিয়ে তাকে ও স্বেচ্ছাসেবকদের সঙ্গে নিয়ে. আসা করা হয়েছে যে, প্রতিটি শহরে যেখানে এই প্রতিনিধি দল পৌঁছবে, সেখানে এই পতাকার একটি নকল ও এক বড় টব ভর্তি টিউলিপ ফুল আয়োজক পরিষদের পক্ষ থেকে উপহার হিসাবে পৌঁছে দেওয়া হবে. এছাড়া বেশ কয়েকটি বড় বিশ্ববিদ্যালয়কে "ইউনিভার্সিয়াডের বিশ্ববিদ্যালয়" উপাধি অর্পণ করা হবে. ২০১৩ সালের প্রতিযোগিতায় অঞ্চল গুলির সেরা খেলোয়াড়েরা দূত নির্বাচিত হবেন.

    প্রতিটি শহরে এই পতাকার যাত্রাপথে ২০১৩ সালের ইউনিভার্সিয়াডের আদর্শ প্রচার করার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে. এর মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হল "আমরা শান্তি নির্বাচন করেছি!" - নামের এক অনুষ্ঠান করা হবে, যেখানে প্রত্যেকেই সহমত ও ধৈর্য্যের প্রতীক হিসাবে শান্তিকে নির্বাচন করতে পারবেন – এক কাগজের উপরে নিজেদের হাতের তালুর ছাপ দিয়ে. এর পরে এই যুব সম্প্রদায়ের হাতের ছাপ ওয়ালা কাগজ ইন্টারনেটের এক সাইটে বিশেষ করে প্রকাশ করা হবে. আর এই ২০১৩ সালের প্রতি বার্তা নামের অনুষ্ঠান "কামাজ মাস্টার" দলের বড় মালবাহী গাড়ীর দুই পাশ জুড়ে লাগানো হবে বিশাল অভিনন্দন কার্ড হিসাবে, যা সেই সময়ের রাশিয়ার ছাত্র দল, যাঁরা দেশের মর্যাদা রাখার লড়াই করতে প্রতিযোগিতায় নামবেন, তাঁদের জন্য রেখে দেওয়া হবে. ২০১৩ সালের ইউনিভার্সিয়াডের প্রস্তাবনা অনুষ্ঠান দিয়ে মস্কোতে এই পতাকা নিয়ে যাত্রা শেষ হবে.

    "আন্তর্জাতিক ছাত্র ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পতাকা নিয়ে সফর – সারা রাশিয়া জুড়ে এই প্রতিযোগিতার আদর্শের চারপাশে মানুষের সম্মেলনের এক ভাল সম্ভাবনা". পরিকল্পনা রয়েছে যে, ২০১৩ সালে কাজান শহরের ছাত্র অলিম্পিকের মশাল নিয়েও সারা দেশে দৌড়ের আয়োজন করা হবে.