0রাশিয়ার স্কুল-কলেজের ছাত্রছাক্ষীদের গ্রীষ্মকালীন ছুটি শেষ হয়েছে, পয়লা সেপ্টেম্বর তারা পালন করছে জ্ঞানের দিবস – নতুন শিক্ষাবর্ষের শুরু. দেশের সমস্ত স্কুলে সমারোহপূর্ণ সমাবেশ হচ্ছে, তারপরে উঁচু ক্লাসের শিক্ষার্থীরা প্রথম শ্রেণীর ছেলেমেয়েদের হাত ধরে নিয়ে যাবে তাদের জীবনের প্রখম পাঠে, আর কারগরী শিক্ষালয় এবং উচ্চশিক্ষালয়ে প্রথম বার্ষিকীর ছেলেমেয়েদের ছাত্র-ছাত্রী হিসেবে গ্রহণের অনুষ্ঠান হবে. এ বছর প্রথম স্কুলে যাচ্ছে ১৪ লক্ষেরও বেশি শিশু, ২০১০ সালের চেয়ে ৩৩ হাজার বেশি. পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে তাছাড়া বলবত্ হচ্ছে নতুন স্যানিটারি নিয়মাবলি. যেমন, স্কুলের ক্লাসে ২৫ জনের বেশি শিক্ষার্থী থাকবে না, শরীরচর্চার তিনটি ক্লাস থাকবে সপ্তাহে, বিভিন্ন ক্লাসের শিক্ষার্থীদের জন্য বই-খাতার ওজনের সীমা নির্ধারণ করা হচ্ছে. প্রলম্বিত দিনের গ্রুপ খোলার অনুমতি দেওয়া যেতে পারে যদি স্কুলে শোবার ব্যবস্থা থাকে প্রতি শিশু পিছু ৪ বর্গমিটার জায়গার হিসেবে. পয়লা সেপ্টেম্বর ছাত্রছাত্রী গ্রহণ করবে প্রায় ১১০০টি উচ্চশিক্ষালয়, তার মধ্যে ৪৮২টি রাষ্ট্রীয় নয়. তাছাড়া ২০ লক্ষেরও বেশি ছাত্রছাত্রী যাবে কারিগরী বিদ্যালয় ও কলেজে, দেশে যার সংখ্যা আড়াই হাজারের উপর. রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ এই উত্সবের দিন পরিদর্শন করবেন স্তাভ্রোপোল অঞ্চলের একটি মাধ্যমিক স্কুল.