প্যারিসে লিবিয়া সংক্রান্ত সম্মেলনে রাশিয়া এ দেশে নতুন রাষ্ট্রীয় সত্ত্বা গঠনের প্রক্রিয়া সম্বন্ধে নিজের দৃষ্টিভঙ্গী পেশ করবে. এ সম্বন্ধে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ সংস্থাকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেছেন লিবিয়া সম্পর্কে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির বিশেষ প্রতিনিধি মিখাইল মার্গেলোভ. তিনি সম্মেলনে অংশগ্রহণ করবেন, যা ফ্রান্সের রাজধানীতে পয়লা সেপ্টেম্বর শুরু হবে. মার্গেলোভের কথায়, সম্মেলনে মস্কো লিবিয়ায় রাশিয়ার অর্থনৈতিক ও অন্যান্য স্বার্থ রক্ষা করবে. রাশিয়ায় মনে করা হচ্ছে যে, লিবিয়ার অন্তর্বর্তী নেতৃবৃন্দের সামনে রয়েছে দেশের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার অসহজ কর্তব্য. লিবিয়ার জনগণকে শাসনের সংস্থাগুলিকে গঠন করতে হবে, ভাবী গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের বনিয়াদ সর্বসম্মত করতে হবে. রাশিয়া তাছাড়া বাইরের হস্তক্ষেপ ছাড়া লিবিয়ার সার্বভৌমত্ব ও ভূভাগীয় অখন্ডতা বজায় রাখাকে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করে. তিনি বিশেষ করে উল্লেখ করেন যে, বিশ্ব জনসমাজের সদস্যদের উচ্চ দায়িত্ববোধ প্রকট করা উচিত্ এবং রাষ্ট্রসঙ্ঘের সংবিধি এবং অন্যান্য দলিলের কাঠামো অক্ষরে অক্ষরে পালন করে কাজ করা উচিত্. এই “লিবিয়ার মিত্র” নামে সম্মেলন লিবিয়া সংক্রান্ত “কনট্যাক্ট গ্রুপের” চেয়ে যথেষ্ট প্রসারিত হবে. প্যারিসে সমবেত হবেন ৬০টি দেশের প্রতিনিধি. ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি নিকোল্যাসার্কোজি এবং গ্রেট-বৃটেনের প্রধানমন্ত্রী ডিভড ক্যামেরনের সভাপতিত্বে এ সম্মেলনে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুনো উপস্থিত থাকবেন. মার্গেলোভ যোগ করে বলেন যে, সম্মেলনের কর্তব্যের মধ্যে আছে – কনট্যাক্ট গ্রুপের কাজের ফলাফলের খতিয়ান টানা এবং লিবিয়ার জনগণকে সমর্থন করার নতুন আন্তর্জাতিক বিন্যাসের ভিত্তি স্থাপন করা.