লিবিয়ার অন্তর্বর্তী জাতীয় পরিষদ দেশে সামরিক পর্যবেক্ষক পাঠানো সম্পর্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘের প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছে. জাতীয় পরিষদের প্রতিনিধি ইব্রাহিম দাব্বাশি বলেন, “রাষ্ট্রসঙ্ঘ প্রস্তাব করছে শান্তি বাহিনী পাঠানোর, তবে লিবিয়া সঙ্কট হল – বিশেষ ঘটনা”. তাঁর কথায়, লিবিয়ার ঘটনাবলি – “এটা গৃহযুদ্ধ নয়, দুই পার্টির বিরোধও নয়, এ হল মানুষ, যারা একনায়কতন্ত্র থেকে নিজেদের রক্ষা করছে”. লিবিয়ায় রাষ্ট্রসঙ্ঘের প্রতিনিধি ইয়েন মার্টিন মনে করেন যে, লিবিয়া যে কোনো সামরিক হস্তক্ষেপ এড়ানোর চেষ্টা করছে, তবে পুলিশের ব্যবস্থা গড়ে তোলা এবং নির্বাচন আয়োজনের জন্য রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাহায্য চাইতে পারে. এদিকে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদকে আহ্বান জানিয়েছেন লিবিয়ায় মানবতাবাদী সঙ্কট অতিক্রমের জন্য সক্রিয় ক্রিয়াকলাপ চালাতে. লিবিয়ার জনগণ আন্তর্জাতিক জনসমাজের, সর্বপ্রথমে রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছ থেকে সাহায্যের আশা করছে. মঙ্গলবার তিনি বলেন, সেইজন্য যথাসম্ভব তাড়াতাড়ি নিরাপত্তা পরিষদের ম্যান্ডেট সহ রাষ্ট্রসঙ্ঘের কর্মীদের লিবিয়ায় পাঠানো প্রয়োজন. বান কি মুন লিবিয়ার মিত্রদের সম্মেলনে অংশগ্রহণ করবেন, যা পয়লা সেপ্টেম্বর প্যারিসে অনুষ্ঠিত হবে.