চীন নিজের পারমাণবিক অস্ত্র ভান্ডার বাড়াচ্ছে বিভাজনযোগ্য ওয়ারহেড সম্বলিত নতুন মোবাইল ভিত্তিক রকেটের সাহায্যে. এ সম্বন্ধে “ওয়াশিংটন পোস্ট” পত্রিকা জানিয়েছে চীনের সামরিক ক্ষমতা সংক্রান্ত পেন্টাগনের বার্ষিক রিপোর্টের উদ্ধৃতি দিয়ে. আমেরিকানরা মনে করে যে, চীনের হাতে ৭৫টি দূরপাল্লার পারমাণবিক রকেট আছে. তাছাড়া চীনের সশস্ত্র বাহিনীতে আছে ১২০টি মাঝারী ও অন্তর্বর্তী পাল্লার রকেট. রিপোর্টের প্রণেতাদের তথ্য অনুযায়ী, চীন “সাংখ্যিক ও গুণগত দিক থেকে নিজের স্ট্র্যাটেজিক রকেট ক্ষমতা উন্নত করছে”. মার্কিনী “ওয়াশিংটন পোস্ট” পত্রিকা চীন বিষয়ক সামরিক বিশেষজ্ঞ রিচার্ড ফিশারের এ উক্তি উদ্ধৃত করছে যে, বিজিং নিজের রকেট পরিকল্পনার কথা জানাচ্ছে না, তাই মার্কিনী প্রশাসনের জন্য “এখন পারমাণবিক ক্ষমতার আরও হ্রাস বিবেচনা করার সময় নয়”. পেন্টাগনের রিপোর্টে এই প্রথম বলা হয়েছে যে, চীন বিস্ফোরণহীন উচ্চগতির ইন্টারসেপ্টারের সাহায্যে রকেটবিরোধী প্রতিরক্ষার “ছাতা” তৈরি করছে.  তা ৮০ কিলোমিটার পর্যন্ত উচ্চতায় রকেট এবং অন্যান্য উড়ান সরঞ্জাম ভেদ করতে সক্ষম. আমেরিকানরা মনোযোগ দিচ্ছে এর প্রতি যে, চীন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচনা করছে অনুরূপ রকেটবিরোধী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বিকাশের জন্য. রিপোর্টে এ খবরও দেওয়া হয়েছে যে, চীন স্পুতনিকবিরোধী অস্ত্রের প্রস্তুতিও চালিয়ে যাচ্ছে, যা প্রথম পরীক্ষিত হয়েছিল ২০০৭ সালে.