রাশিয়া সিরিয়ার বিরুদ্ধে বাধানিষেধ প্রবর্তনের প্রয়োজনীয়তা দেখে না. এ সম্বন্ধে বলেছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন, সিরিয়ার কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের একসারি সদস্যের দ্বারা খসড়া সিদ্ধান্তের প্রস্তুতি সম্পর্কে মন্তব্য করে. প্রস্তাবিত ব্যবস্থার মধ্যে আছে – ব্যক্তিগতভাবে সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের বিরুদ্ধে বাধানিষেধ প্রবর্তন. তাছাড়া পরিকল্পনা আছে অন্যান্য উচ্চপদস্থ আমলাদের বিরুদ্ধে বাধানিষেধ প্রবর্তনের, যাঁরা, পাশ্চাত্যের মতে, সরকারবিরোধী আন্দোলন দমনের সময় শান্তিপূর্ণ অধিবাসীদের মৃত্যুর জন্য ব্যক্তিগতভাবে দায়ী. রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচটি স্থায়ী সদস্যের একটি হিসেবে রাশিয়া এ প্রশ্নে সিদ্ধান্ত গ্রহণ অবরোধ করতে পারে. ডামাস্কাসের বিরুদ্ধে বাধানিষেধ প্রবর্তনের প্রয়োজনীয়তা না থাকা সম্পর্কে রাশিয়ার কূটনীতিজ্ঞদের সাথে, মনে হয়, একমত প্রকাশ করেন নিরাপত্তা পরিষদের অন্য স্থায়ী সদস্য চীন এবং সাময়িকভাবে নিরাপত্তা পরিষদের অন্তর্ভুক্ত দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রেজিল ও ভারত.