রাশিয়া প্যালেস্টাইনের রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছ থেকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসাবে স্বীকৃতি পাওয়ার প্রচেষ্টাকে সমর্থন করে, কিন্তু প্যালেস্তানীয় জনগন দেশে আভ্যন্তরীণ ঐক্যমতে পৌঁছতে ও ইজরায়েলের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যেতে বাধ্য, এই কথা রিয়া নোভস্তি সংস্থাকে সোমবারে ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার জাতীয় সভার আন্তর্জাতিক পরিষদের সভাপতি মিখাইল মার্গেলভ. মাহমুদ আব্বাসের প্রশাসন সেপ্টেম্বর মাসে জর্ডন নদীর পশ্চিম তীরে, গাজা সেক্টরে ও পূর্ব জেরুজালেম এলাকা জুড়ে প্যালেস্টাইন রাষ্ট্রের স্বাধীন অস্তিত্বের স্বীকৃতী নিয়ে আবেদন করতে চেয়েছে. একই সঙ্গে, রাশিয়ার সেনেট সদস্য বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন যে, রাশিয়া শুধু মাত্র সেই শর্তেই প্যালেস্টাইনের আবেদনকে সমর্থন করবে, যদি তা ইজরায়েলের সঙ্গে আলোচনার পরিবর্তে না করা হয়. এই বিরোধের মীমাংসা কোন এক পক্ষের কাজে করা সম্ভব নয়. আজ আলোচনার পথে কোন না কোন ভাবে অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে অনৈক্য, (গাজা সেক্টরে প্রভাবশালী দল গুলির মধ্যে প্রধান)হামাস ও (পশ্চিম তীরে প্রশাসনে থাকা)ফাতহা দলের মধ্যে, যারা আবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে প্যালেস্টাইনের জন্য সদস্য পদ চেয়েছে. তিনি আরও যোগ করেছেন যে, রাষ্ট্রসঙ্ঘে আবেদন প্যালেস্টাইনের জন্য ইজরায়েলের সঙ্গে আলোচনার ক্ষেত্রে অবস্থানকে শক্তিশালী করবে, যা ২০১০ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে স্থগিত রয়েছে ইজরায়েলের পক্ষে থেকে অধিকৃত এলাকায় গৃহ নির্মাণের জন্য. মার্গেলভ আরও মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, রাষ্ট্রসঙ্ঘে নতুন রাষ্ট্র গ্রহণের বিষয়ে নিরাপত্তা পরিষদের সমর্থনেরও প্রয়োজন, কিন্তু বর্তমানে অন্ততঃ একটি সদস্য দেশ প্যালেস্টাইনের আবেদনের বিরুদ্ধতা করছে – মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র. রাশিয়ার সেনেট সদস্য সাবধান করে দিয়ে বলেছেন যে, রাষ্ট্রসঙ্ঘে প্যালেস্টাইনের আবেদন লঘু হতে পারে, কারণ এই দেশের প্রতিনিধিরা আভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে বিদীর্ণ এবং তাঁরা একই পতাকা নিয়ে আসছেন না. তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, হামাসের প্রতিনিধিরা আব্বাসের নামে দোষ দিয়েছেন যে, তিনি এই বছরের এপ্রিল মাসে ফাতহা ও হামাসের মধ্যে শান্তি চুক্তি লঙ্ঘণ করেছেন ও জর্ডন নদীর পশ্চিম তীরের অঞ্চলে শুধু নিজের দলের লোকেদেরই স্থানীয় পুর সভার নির্বাচনের জন্য ভোটার তালিকা ভুক্ত করেছেন. তার উপরে অস্থায়ী অন্তর্বর্তী সরকার গঠন নিয়ে আলোচনাও স্থগিত রয়েছে – যা শান্তির জন্য প্রয়োজনীয়, সুতরাং শান্তি আলোচনা মূলত ব্যর্থ হয়েছে. শুধু নিজের বাড়ীতে শৃঙ্খলা বজায় রেখে, তবেই প্যালেস্টাইন রাষ্ট্রসঙ্ঘের সম্পূর্ণ সদস্য হওয়াকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করতে সক্ষম – বলেছেন মার্গেলভ.