0বছরের গরম কালে মঙ্গল গ্রহের পিঠে নোনা জলের স্রোত বয়ে যেতে পারে বলে মনে করেছেন নাসা সংস্থার বিজ্ঞানীরা. মঙ্গল পৃষ্ঠের ছবি থেকে পাহাড়ের ঢালে অন্ধকার জায়গা দেখতে পাওয়া গিয়েছে, যা বসন্ত ও গ্রীষ্ম কালে আয়তনে বড় হয় ও শীতকালে হারিয়ে যায়. আমেরিকার বিজ্ঞানীরা মনে করেছেন যে, এটা ৫০ প্রোমিলে ঘনত্বের বেশী লবণাক্ত জল, যা সেখানের গ্রীষ্মের তাপমাত্রা মাইনাস ২৩ থেকে প্লাস ২৬ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেডে তরল থাকতে পারে. কিছু বৈজ্ঞানিকের মত অনুযায়ী, প্রায় তিনশো কোটি বছর আগে মঙ্গল গ্রহের তিনভাগ ছিল মহা সমুদ্রে আবৃত, যেগুলিতে নদী এসে উপনীত হত, আর আবহাওয়া তে মেঘ হত ও বৃষ্টি পড়ত. যদি এই লবণাক্ত জলের স্রোতের সম্বন্ধে ধারণা সত্য বলে প্রমাণিত করা সম্ভব হয়, তবে এটা আমাদের সময় কালের মধ্যে এটাই লেই গ্রহে জলের উপস্থিতির প্রমাণ হবে.