রাশিয়ার প্রয়োজন হল রপ্তানীর জিনিসের মধ্যে তথ্য প্রযুক্তি সংক্রান্ত উত্পাদনের পরিমান বাড়ানো. এই বিষয়ে রেডিও রাশিয়াকে দেওয়া এক একক সাক্ষাত্কারে "স্কোলকোভো" উদ্ভাবনী কেন্দ্রের কম্পিউটার ও উদ্ভাবনী তথ্য প্রযুক্তি বিভাগের প্রধান আলেকজান্ডার তুরকোত ঘোষণা করেছেন. তাঁর কথামতো, তাঁর অধীনস্থ কোম্পানী গুলির এটাই প্রধান লক্ষ্য.

উদ্ভাবনী কেন্দ্র "স্কোলকোভো" অঞ্চলে তথ্য প্রযুক্তি বিভাগ বর্তমানে ১৫টি প্রধান দিক নিয়ে কাজ করছে, তার মধ্যে রয়েছে তথ্য পাঠানোর নতুন প্রযুক্তি ও, যেমন, বিনিয়োগ ও ব্যাঙ্ক ব্যবস্থার জন্য নতুন প্রোগ্রাম সফ্টওয়্যার. বিশেষ মনোযোগ দেওয়া হয়েছে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি নিয়ে শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিষয়ে অনুপ্রবেশ. এই বিভাগের কাজকর্মের কাঠামো তৈরী ও তার পরিষেবা করা খুব সহজেই হতে পেরেছে. রাশিয়াতে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি বিষয়ে কাজ করার জন্য উত্সাহী লোক আছেন, আর ভাল রকমের বুদ্ধি সম্পদ এই ধরনের গবেষণা মূলক কাজের জন্য ভরসা যোগ্য ভিত্তি হয়েছে বলে মনে করে আলেকজান্ডার তুরকোত বলেছেন:

"রাশিয়াতে বর্তমানে সারা বিশ্ব বিখ্যাত কয়েকটি কোম্পানী রয়েছে, যারা তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ে কাজ করছে আন্তর্জাতিক বাজারে, তারা এই বাজারের কিছুটা দখল করে রেখেছে, আর অবশ্যই তাদের বিশ্বে পরিচিতি রয়েছে অভিজ্ঞতা ও বিশেষ ধরনের পেশাদারী ক্ষমতার জন্য. তার সঙ্গেই রাশিয়াতে যথেষ্ট উচ্চমানের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও রয়েছে, যারা এই ধরনের গবেষণার জন্য তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ের সঙ্গে জড়িত বিশেষজ্ঞ তৈরী করে মূল বৈজ্ঞানিক বিষয় গুলির মধ্য থেকেই – এটা প্রাথমিক ভাবে পদার্থ বিদ্যা, গণিত".

এই মুহূর্তে বিভাগে আপাততঃ ৬০টি কোম্পানী যোগ হয়েছে, যার মধ্যে ১০টি বিশেষজ্ঞ সভার কাছ থেকে সমর্থন পেয়েছে তাদের নিজেদের প্রকল্প বাস্তবায়ন করার. তাদের মধ্যে রয়েছে খুবই সুবিধাজনক বাণিজ্যিক প্রকল্প, যা গবেষণা শেষ হওয়া মাত্রই বাজারে চাহিদার সৃষ্টি করবে, আবার রয়েছে দীর্ঘস্থায়ী প্রকল্পও, যেগুলির পিছনে এই ক্ষেত্রের ভবিষ্যত, এই কথা বলে আলেকজান্ডার তুরকোত যোগ করেছেন:

"খুবই আগ্রহজনক প্রকল্প গুলির মধ্যে, বোধহয়, যে গুলি দ্রুত বাণিজ্যিক ভাবে ব্যবহার যোগ্য হবে না, অথচ খুব বড় সম্ভাবনা রাখে ও তার জন্য খুবই উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন দলেরা কাজ করছেন, তাদের নাম করতে হলে আমাদের রুশ কোয়ান্টাম সেন্টারের নাম করা দরকার. তারা এমন এক বৈজ্ঞানিক কেন্দ্র, যারা কোয়ান্টাম ম্যাথামেটিক্স নিয়ে কাজ করছেন. আমাদের ছবি ও কন্ঠস্বর চেনা সম্বন্ধেও খুবই আগ্রহজনক প্রকল্প রয়েছে, আর তার সঙ্গে রয়েছে কম্পিউটার নিরাপত্তা সংক্রান্ত প্রকল্প".

এই বিভাগের সাফল্যের জন্য বিদেশী কোম্পানী গুলির সঙ্গে সহযোগিতাও রয়েছে. "স্কোলকোভো" তহবিলের চারপাশে সারা বিশ্ব বিস্তৃত সহযোগিতা শুরু হয়েছে, যার বেশীর ভাগটাই তথ্য প্রযুক্তি কোম্পানী গুলির সঙ্গে যুক্ত, যেমন, ইনটেল, আই বি এম, সিস্কো ও মাইক্রোসফ্ট – এই কথা উল্লেখ করেছেন তুরকোত. তিনি বলেছেন:

"আমাদের সঙ্গে সেই সমস্ত কোম্পানী সহযোগিতা করছে, যেমন বলা যাক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানী, ইজরায়েল থেকে. এটা, যেমন সদ্য শুরু হওয়া একেবারে অঙ্কুরে থাকা কোম্পানী, যারা রাশিয়াতে কাজ করতে পারার মধ্যে এক ধরনের সহজ প্রাপ্য অংশ দেখতে পাচ্ছে, যেমন, শিক্ষিত লোক, ভাল বিজ্ঞান প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা, যা তাঁদের দেশ গুলিতে তেমন সহজ প্রাপ্য নয়, তেমনই বড় কোম্পানী গুলি, যারা আমাদের এখানে বৈজ্ঞানিক গবেষণা কেন্দ্র খুলছেন, যা আমরা সমর্থন করছি. অন্য কাজের পদ্ধতি হল, যখন এই সমস্ত বড় কোম্পানী গুলিই আমাদের সঙ্গে একসাথে কিছু তৃতীয় প্রকল্পকে সহায়তা করছে. তারা তৈরী আছে ভেনচার তহবিল দাতা হিসাবে কাজ করতে, এমনকি তারা নানা ধরনের গ্র্যান্ট দিচ্ছে রুশ কোম্পানী গুলিকে, যাদের কাজে তারা যথেষ্ট আগ্রহী".

এই তথ্য প্রযুক্তি বিভাগের শেষ বড় প্রকল্প হল সদ্য শুরু হওয়া কোম্পানী গুলিকে "শুরুর মূলধন" নামে এক প্রতিযোগিতায় আনা. এর শেষ স্তরে জুরি বোর্ডের বিচারের জন্য ৮টি প্রকল্প দেওয়া হয়েছে, এর মধ্যে বিজয়ী পাবে নিজের ধারণার বাস্তবায়নের জন্য এক লক্ষ দশ হাজার ডলার. আলেকজান্ডার তুরকোত ঘোষণা করেছেন যে, শুরু হওয়া তথ্য প্রযুক্তি কোম্পানী গুলি প্রায়ই অনুতাপ করে থাকে যে, তাদের কাজ শুরু করার মতো অর্থের যোগান কম, আর বিনিয়োগ কারীরা বলে থাকেন, যে, তাদের কাছে অর্থ রয়েছে, কিন্তু উপযুক্ত ধারণাই নেই, যার জন্য অর্থ বিনিয়োগের ইচ্ছা হয়. আর "স্কোলকোভো" কেন্দ্রের গ্র্যান্ট দেওয়া সংক্রান্ত প্রতিযোগিতা গুলি দুই পক্ষকেই সাক্ষাত করার ও একসঙ্গে কাজ করার ব্যবস্থা করে দেয়.