ডেমোক্র্যাট ও রিপাব্লিকান দলের প্রতিনিধিরা রাষ্ট্রীয় ঋণের সর্ব্বোচ্চ মাত্রা বৃদ্ধি ও বাজেট খরচের পরিমান কমানো নিয়ে এক কাঠামো নির্ণায়ক সমঝোতা তৈরী করতে পেরেছে. রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা আশ্বাস দিয়েছেন যে, সমঝোতা ডিফল্টের আশঙ্কা দূর করবে ও নূতন অর্থনৈতিক সঙ্কটের সম্ভাবনা দূর করবে.

    মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় ঋণের মাত্রা, মার্কিন কংগ্রেসের এক নাম বলতে অনিচ্ছুক উত্সের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী কয়েক ধাপে দুই লক্ষ কোটি ডলার পর্যন্ত বাড়তে দেওয়া হবে. এর সঙ্গেই সমান্তরাল ভাবে দুই ধাপে সরকারি খরচের পরিমানও কমানো হবে. পরিকল্পনা করা হয়েছে যে, আগামী দশ বছরে তা আড়াই লক্ষ কোটি ডলার অবধি কমানো হবে. গুরুত্বপূর্ণ ব্যয় সঙ্কোচ করা হতে চলেছে সামরিক দপ্তরে – পেন্টাগনের বাজেট কমানো হবে ৩৫ হাজার কোটি ডলার. আপাততঃ সামাজিক ও চিকিত্সা খাতে ব্যয়ের বিষয়টি বিপদের বাইরে রয়েছে – কংগ্রেস সদস্যরা এই ক্ষেত্রে খরচ কম করতে বলেন নি. বারাক ওবামা একই সঙ্গে আসা প্রকাশ করেছেন যে, ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধিরাও গৃহীত সমঝোতা পরিকল্পনাকে সমর্থন করবেন ও কর সংক্রান্ত ছাড় ও বিশেষ ধরনের হিসাবের ছাড়  অস্বীকার করে কর দেবেন ও তা নতুন ধরনের বাজেট আয়ের সম্ভাবনা খুলে দেবে.

    আলোচনার সময়ে রিপাব্লিকান ও ডেমোক্র্যাট দলের লোকেরা পারস্পরিক দাবীর বিষয়ে ছাড় দিয়েছে. কিন্তু বর্তমানের পরিস্থিতি ওবামা প্রশাসনের দূর্বলতাকেই প্রমাণ করে দিয়েছে, এই ঘোষণা "রেডিও রাশিয়াকে" দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে রুশ বিজ্ঞান একাডেমীর সামাজিক – রাজনৈতিক গবেষণা কেন্দ্রের সহকারী প্রধান ভিলেন ইভানভ করে বলেছেন:

    "ওবামার রাজনীতির প্রতি বড় ধরনের হতাশাই প্রকাশ পেয়েছে. এই বিষয়ে সাক্ষ্য দিয়েছে এমনকি এই ডিফল্টের বড় ধরনের আশঙ্কাও, যদিও তাঁর আগের সমস্ত রাষ্ট্রপতিরাই – রেগান ও জর্জ বুশ সিনিয়র – অনায়াসে রাষ্ট্রীয় ঋণের মাত্রা বাড়িয়ে গিয়েছেন, আর এই ঘটনা কোন বড় প্রতিধ্বনিই তোলে নি".

    কিন্তু শেষ অবধি ওবামার মুখ রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে, তাই ভিলেন ইভানভ যোগ করেছেন:

    "এই পরিস্থিতি থেকে বিজয়ী হয়ে ওবামা বের হতে পরেছেন, তিনি দেশের প্রতীক ও এই ধরনের পরিস্থিতিতে, তাঁর উচিত দলের উর্দ্ধে যাওয়া এবং তাঁর উচিত জাতির ভবিষ্যত নিয়ে ভাবা. আর এখানে আভ্যন্তরীণ দলগত বিরোধ শেষ পর্যায়ে দ্বিতীয় সারিতে সরে গিয়ে পথ করে দিতে বাধ্য".

    একই সময়ে গৃহীত সিদ্ধান্ত রিপাব্লিকান দলের লোকেদের অনুকূলে গিয়েছে. তারা শেষ অবধি বাধ্য করতে পেরেছে যে, রাষ্ট্রীয় ঋণের মাত্রা বৃদ্ধি বাজেট খরচের কমানোর সঙ্গে এখন থেকে জুড়তে পারা গিয়েছে, এই কথা ব্যাখ্যা করে বলেছেন বিনিয়োগ গ্রুপ ক্যাপিটাল ফিনান্সের বিশ্লেষক আলেক্সেই ভিয়াজভস্কি, তিনি বলেছেন:

    "এখানে সমস্যা খরচ কমানোতে নয়, বরং তিনটি ধাপে রাষ্ট্রীয় ঋণের সর্ব্বোচ্চ মাত্রা বৃদ্ধির পরিকল্পনায়. এখন এই পরিকল্পনা অনুযায়ী মাত্রা বাড়ানো হচ্ছে শুধু মাত্র ৪০ হাজার কোটি ডলারের. আর তার পরের বৃদ্ধি জোড়া থাকল সরকারি খরচ কমানোর সঙ্গেই. বারাক ওবামা এর পর থেকে রিপাব্লিকান দলের সঙ্গে নিয়মিত আলোচনায় বাঁধা পড়লেন বাজেট খরচ কমানো নিয়ে. এটা রিপাব্লিকান দলের লোকেরা বিশেষ করে করেছে, যাতে বর্তমানের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতিকে এক ধরনের বঁড়শিতে গেঁথে রাখা সম্ভব হয়. খরচ কমানো নিয়ে সমঝোতা করবে না, আমরাও তোমার জন্য মাত্রা বাড়াবো না. আর যদি না বাড়াই – তখনই শুরু হবে ঋণের সঙ্কট, আবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডিফল্ট. আর এটা ২০১২ সালে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সময়ে বাড়তেই পারে".

    মনে করিয়ে দিই যে, ডেমোক্র্যাট ও রিপাব্লিকান দলের লোকেদের মধ্যে রাষ্ট্রীয় ঋণের মাত্রা বাড়ানো নিয়ে আলোচনা মে মাস থেকেই চলছে. শেষ সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা হয়েছিল আজকের দিনের মধ্যেই. যদি এটা না হয়, তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ঘোষিত হবে টেকনিক্যাল ডিফল্ট. বিশেষজ্ঞরা উল্লেখ করেছেন যে, দল দুটি বহু আগেই স্থির করে রেখেছিল ডিফল্ট যাতে না হয়. অর্থনীতি যাতে ভেঙে না পড়ে. কিন্তু সিদ্ধান্ত নেওয়া পেছনো হচ্ছিল সেই কারণে, যে, পক্ষেরা নিজেদের সুবিধা অনুযায়ী আরও ভাল শর্ত আদায় করতে চাইছিল. তার সঙ্গে দল গুলির ভিতরের বিভিন্ন লবি করার দলও কাজ করছিল, নিজেদের পরিকল্পনা ও লক্ষ্যের জন্য সম্পূর্ণ রকমের বাজেটের অর্থ বিনিয়োগ বজায় রাখার জন্য.