0পাকিস্তানের ‘তাহরিক-এ তালিবান’ গোষ্ঠীর নেতৃবৃন্দের ওপর জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ বিভিন্ন বিধিনিষেধ আরোপ করবার পরে আফগানিস্তানে সন্ত্রাসমুলক কার্যকলাপ কমবে. শনিবার কাবুলে এক সাংবাদিক-সম্মেলনে এ কথা ঘোষণা করেন জাতীয় নিরাপত্তা পরিচালন সমিতির তথ্য সচিব লতিফুল্লা মাশাল. গত শুক্রবার মাকিন-যুক্তরাষ্ট্র, গ্রেট বৃটেন এবং পাকিস্তানের প্রস্তাবে জাতিসংঘের সাধারন পরিষদ ঐ চরমপন্থী গোষ্ঠীর নেতা হাকিমুল্লা মেহসুদ ও ওয়ালি উর-রেহমানকে তাদের কালো তালিকার অন্তর্ভুক্ত করেছে. এখন থেকে আন্তর্জাতিক জনসমাজ আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তাদের বিরুদ্ধে কাজ করবে, যথাঃ বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা সফরে তাদের অধিকার সীমাবদ্ধ করা হবে. পাকিস্তানের ‘তাহরিক-এ তালিবান’ গোষ্ঠী পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের ভূখন্ডে অসংখ্য জঙ্গী হামলার অপরাধে দোষী. খবরে প্রকাশ, যে পাকিস্তানের ঐ গোষ্ঠী সন্ত্রাসবাদী-আত্মঘাতীদের তালিম দিয়ে আফগানদের কাছে তাদের বিক্রি করে. মাশাল উল্লেখ করেছেন, যে এক একজন সন্ত্রাসবাদী-আত্মঘাতীকে পাঁচ থেকে ছয়লাখ পাকিস্তানি টাকায়, যা মোটামুটি ৫ থেকে ৬ হাজার ডলারের কাছাকাছি, তালিবানরা আফগানিস্তানে বিক্রি করে.