রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন ২০১২ সালে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির নির্বাচনে পদপ্রার্থী হিসেবে  দাঁড়ানোর সিদ্ধান্তের কাছাকাছি, জানিয়েছে “রয়টার” সংবাদ এজেন্সি. এক উচ্চপদস্থ রাজনৈতিক উত্স নাম না জানানোর শর্তে এজেন্সিকে জানিয়েছেন, “আমি মনে করি পুতিন নিজের জন্য ঠিক করে নিয়েছেন যে, নির্বাচনে দাঁড়াবেন”. সেই উত্স বলেন, পুতিন উদ্বিগ্ন যে,  মেদভেদেভের প্রতি রাজনীতিজ্ঞ, বড় বড় ব্যবসায়ী এবং নির্বাচকদের প্রয়োজনীয় সমর্থন নেই, যাতে রাশিয়ায় রাজনৈতিক সংস্কার সাধনের গতিতে স্থিতিশীলতা সুনিশ্চিত করা যায়, জানিয়েছে "রয়টার". মেদভেদেভের প্রেস-সেক্রেটারি নাতালিয়া তিমাকোভা দুই নেতার মাঝে কোনো রকমের মতভেদের অস্তিত্ব খন্ডন করেছেন. তিনি বলেন, “আমি বুঝতে পারছি না কোথা থেকে আসছে এ সব গুজব, কারণ রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী শুধু আনুষ্ঠানিক বিষয় নিয়েই নয়, অনানুষ্ঠানিকভাবেও আলাপ করেন”. পুতিনের প্রেস-সেক্রেটারি দমিত্রি পেসকোভ প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির পদে ফেরার আশা করেন কি না এ প্রশ্নের উত্তরে বলেন, “ভ্লাদিমির ভ্লাদিমিরোভিচ এখন প্রখরভাবে কাজ করছেন, এবং নির্বাচনে দাঁড়াবেন কি না সে সম্পর্কে ভাবছেন না”. পুতিন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন ২০০০ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত, আর তারপর শাসন ক্ষমতা তিনি অর্পন করেন মেদভেদেভকে. রাশিয়ার সংবিধান রাষ্ট্রপতির পদে পর পর তিন মেয়াদ কাজ করা নিষেধ করে, তবে ২০১২ সালের মার্চে তাঁর রাষ্ট্রপতি পদের জন্য নির্বাচনে দাঁড়ানোর পথ খোলা রয়েছে.