সিরিয়ার সরকার সার্বজনীন নির্বাচনের খসড়া আইন অনুমোদন করেছে. দামাস্কাসে অনুষ্ঠিত এক সাংবাদিক-সম্মেলনে ভাষণ দিতে গিয়ে সেদেশের তথ্যমন্ত্রী আদনান মাহমুদ উল্লেখ করেন, যে এই আইন দেশের রাজনৈতিক বিবর্তনের উত্কর্ষবৃদ্ধির জন্য দুয়ার খুলে দেবে.তার বক্তব্য হল – অতঃপর নাগরিকেরা স্বাধীনভাবে গণপরিষদে এবং স্থানীয় কেন্দ্রে তাদের পছন্দমতো প্রার্থী নির্বাচন করতে পারবে. ভোটদান প্রক্রিয়ার ওপর নিয়ন্ত্রণ রক্ষা করবে সর্বোচ্চ নির্বাচনী কমিটি এবং দেশের সুপ্রীম কোর্টের বিচারকরা হবেন তার সদস্য. তিনদিন আগে আদেল সাফারের মন্ত্রীসভা গোটা দেশে আলোচনার উদ্দেশ্যে রাজনৈতিক পার্টি সম্পর্কিত নতুন খসড়া আইন প্রকাশ করেছেন. আশা করা হচ্ছে, যে এই সপ্তাহে মুদ্রণ ও সংবাদ প্রচার মাধ্যম সংক্রান্ত নতুন আইন প্রনয়ণের কাজ সমাপ্ত হবে. নতুন উদারপন্থী আইনাবলী অনুমোদন করবার জন্য গণপরিষদের সদস্যরা আগামী ৭ই অগাস্ট বিশেষ অধিবেশনে মিলিত হবেন. উপ রাষ্ট্রপতি ফারুক শারা জানিয়েছেন, যে সিরিয়ার নতুন সংবিধান প্রনয়ণের কাজ তিনমাস পরে শেষ হবে.