লিবিয়ার সরকারী বাহিনী রকেট আঘাতের দ্বারা মিসুরাতের বড় একটি পেট্রলের গুদাম পুড়িয়ে দিয়েছে. এ শহর এখন বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণাধীনে রয়েছে, আর গদ্দাফির বিশ্বস্ত বাহিনী কয়েক মাস ধরে তার অবরোধ করছে. ত্রিপোলির ২০০ কিলোমিটার পুবে অবস্থিত লিবিয়ার তৃতীয় বড় বন্দর-শহর মিসুরাত সঙ্ঘর্ষরত উভয় পক্ষের জন্যই রণনৈতিক গুরুত্ব ধারণ করে. পেট্রলের অভাব এমন অবস্থা সৃষ্টি করেছে যে, শহরে বেশির ভাগ পেট্রোল-পাম্প বন্ধ, আর বাকিগুলি সেবা করছে শুধু লড়াইয়ে অংশগ্রহণ করা বিদ্রোহীদের মোটরগাড়িগুলির এবং বিপর্যয় নিরসন বিভাগের প্রযুক্তির. লিবিয়ায় মুয়ম্মর গদ্দাফির পদত্যাগের দাবিতে ব্যাপক মিছিল শুরু হয় ফেব্রুয়ারী মাসের মাঝামাঝি. তা পরে পরিণত হয় সরকারী বাহিনী ও বিদ্রোহীদের মাঝে লড়াইয়ে. রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৯শে মার্চ ন্যাটো জোট উত্তর আফ্রিকার এ দেশে সামরিক অভিযান শুরু করে.