নরওয়েতে ডবল সন্ত্রাস চালানোয় অভিযুক্ত আন্ডের্স ব্রেইভিক সোমবার আদালতের বৈঠকে নিজের দোষ স্বীকার করে নি. প্রথম রুদ্ধদ্বার শুনানীতে সে বলে যে, নরওয়ে তথা ইউরোপকে বাঁচাতে চেয়েছিল. নিজের ম্যানিফেস্ট অনুযায়ী ব্রেইভিক ইউরোপের ইস্লামীকরণের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করছে. সন্দেহভাজনের গ্রেপ্তারী পরোয়ানার মেয়াদ আট সপ্তাহ পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে. বিচারকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, অভিযুক্তকে আগামী কয়েক সপ্তাহ সম্পূর্ণ একাকীত্বে কাটাতে হবে, আর বিচারের প্রক্রিয়া প্রচার মাধ্যমের জন্য বন্ধ থাকবে. অভিশংসকের কথায়, আদালতের বৈঠকের সময় অভিযুক্ত একেবারে শান্ত ছিল. জেরার সময় সে বলে যে, বাকি জীবন জেলে কাটাতে প্রস্তুত. গত শনিবার ব্রেইভিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হয় নরওয়ের ফৌজদারী আইনবিধির ১৪৭ নম্বর ধারা অনুযাযী (“সন্ত্রাসবাদ এবং সন্ত্রাসবাদী ক্রিয়াকলাপ”). তার বিরুদ্ধ অভিযোগ তোলা হয়েছে উতিয়োইয়া দ্বীপে ক্ষমতাসীন পার্টির যুব শিবিরে হত্যাকান্ড চালানোর এবং ওসলোর কেন্দ্রস্থলে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের কাছে বিস্ফোরণ আয়োজনের. সঠিক করা তথ্য অনুযায়ী, এ সন্ত্রাসের ফলে নিহত হয়েছে ৭৬ জন. নরওয়ে-তে সন্ত্রাসবাদ এবং সন্ত্রাসবাদী ক্রিয়াকলাপের জন্য সর্বাধিক শাস্তি ২১ বছরের কারাদন্ড, যা প্রতি পাঁচ বছর অন্তর অন্তর বাড়ানো যেতে পারে, যদি ঐ ব্যক্তি সমাজের জন্য বিপজ্জনক বলে মনে করা হয়. পুলিশের তথ্য অনুযায়ী, মুখ্য শুনানী শুরু হতে পারে এক বছর পরে.