ভারতের দক্ষিণ-পুবে অন্ধ্র প্রদেশে ইউরেনিয়াম আকরের বড় একটি খনি পাওয়া গেছে. এ খনিতে পরীক্ষিত সঞ্চয়ের পরিমাণ ৪৯ হাজার টন ইউরেনিয়াম আকর, মঙ্গলবার এ সম্বন্ধে জানিয়েছে “হিন্দু” পত্রিকা.  বিশেষজ্ঞদের তথ্য অনুযায়ী, ভূতাত্ত্বিক অনুসন্ধান দেখিয়েছে যে, খনিতে আকরের সঞ্চয় তিন গুণ বেশি হতে পারে. ভূতত্ত্ববিদদের অনুমান যদি প্রমাণিত হয়, তাহলে ইউরেনিয়াম আকরের এ খনিটি পৃথিবীর বৃহত্তম একটি খনি হয়ে উঠতে পারে. বর্তমানে ভারত ইউরেনিয়াম আকর নিষ্কাশন করছে ঝাড়খন্ড রাজ্যের খনি তেকে. তার সঞ্চয় দেড় লক্ষ টন ইউরেনিয়াম আকর বলে মূল্যায়ন করা হচ্ছে. তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন যে, নতুন খনিও ভারতের পারমাণবিক বিদ্যুত্ ক্ষেত্রের পারমাণবিক জ্বালানীর ঘাটতি পুরণ করতে পারবে না. এই আবিষ্কারটি স্বদেশী ইউরেনিয়ামের প্রয়োজন অনেকটা মেটাবে, তবে চাহিদা ও প্রস্তাবের ব্যবধান বজায় থাকবে. দেশকে জ্বালানীর আমদানি চালিয়ে যেতে হবে, বলেছেন ভারতের পারমাণবিক শক্তি বিভাগের প্রধান শ্রীকুমার ব্যানার্জি. তিনি মনে করিয়ে দেন যে, বর্তমানে ভারত ব্যবহার করছে ২০টি পারমাণবিক রিয়াক্টর, যার মোট ক্ষমতা ৪৭৮০ মেগাওয়াট. আগামী কয়েক বছরে দেশ আরও ৩৪টি রিয়াক্টর নির্মাণের পরিকল্পনা করছে, সেই সঙ্গে রাশিয়ার অংশগ্রহণেও.