"ফরমুলা – ১" রুশ চেহারা নিতে চলেছে. মস্কোর একেবারে কেন্দ্রে আবারও হয়েছে প্রদর্শনী রেস, আর অলিম্পিক শহর সোচী দেখিয়েছে যে, তারা এই বিখ্যাত রেসের জায়গা হতে পারে ২০১৪ সালেই.

    গত সপ্তাহের শেষ ছুটির দিন গুলিতে এই নিয়ে চতুর্থ বছর ক্রেমলিনের দেওয়াল ঘেঁষে গাড়ীর চাকার রবার পোড়ানো গতিতে ছুটেছে "ফরমুলা – ১" এর গাড়ী ও অন্যান্য বিখ্যাত রেসের গাড়ী, তার মধ্যে ছিল "বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপের গাড়ী", "ডাকার রেসের" গাড়ী, "২৪ ঘন্টা লে মান" রেসের গাড়ী. "মস্কো সিটি রেসিং" গাড়ী প্রদর্শনীতে এবারে অংশ নিয়েছেন "ম্যাকলারেন" দলের ২০০৯ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন বিজয়ী পাইলট জেনসন বাটন, আর তার সঙ্গে "সিত্রোয়েন" দলের গাড়ী, যারা দেখিয়েছে নতুন রেসের গাড়ী. এই কারণে আলাদা করা রাস্তা দিয়ে গিয়েছে "ইলেকট্রিকা" মোটর গাড়ী, যা দেখতে সাধারন "ফরমুলা – ১" এর গাড়ীর মতই, কিন্তু তার ভিতরে ছিল বিদ্যুত চালিত ইঞ্জিন, যা পেট্রোল চালিত ইঞ্জিনের চেয়ে কোন অংশে কম নয়.

    মস্কো ও ক্রাসনাদার রাজ্যে একই সঙ্গে শুরু হয়েছিল প্রথম রেসের উত্সব "ফরমুলা সোচী" নামে. ভবিষ্যতের অলিম্পিক রাজধানীতে এবারে এসেছে "ফরমুলা – ১" এর সেরা দলের গাড়ী গুলি – "রেড বুল", "ফেরারি", "লোটাস রেনো" আর অবশ্যই রাশিয়ার "মারুসিয়া ভার্জিন" দলের গাড়ী. এই সমুদ্র তীরের শহরের রেসের ট্র্যাকে নিজেদের ক্ষমতা দেখিয়েছেন রাশিয়ার প্রথম "ফরমুলা – ১" রেসের পাইলট ভিতালি পেত্রভ, সবচেয়ে অল্প বয়সী বিশ্বের রেস পাইলট হিসাবে স্বীকৃত ইভগেনি নোভিকভ ও সবচেয়ে ভাল অল্প বয়সী চালকেরা – ১৭ বছরের ইউরি গ্রিগরেঙ্কো ও দানিল ক্যায়াত. এই প্রকল্প রাশিয়াতে শুধু পেশাদারী গাড়ীর খেলাধুলা বিষয়েই উন্নতি করার জন্য হয় নি, বরং যুবকদের নিজেদের বিকাশের জন্যও করা হয়েছে এই কথা বলেছেন রাজ্যের রাজ্যপাল আলেকজান্ডার ত্কাচেভ.

    ২০১৫ সালের পর থেকে রাশিয়াতে সম্ভবতঃ মস্কো ও সোচী এই দুই শহরে "ফরমুলা – ১" রেস হবে. আগামী মাস থেকেই এখানে দলের জন্য, গাড়ী সারাইয়ের জন্য ও চিকিত্সার জন্য ভবন তৈরী করা হবে.  সোচী শহরে অলিম্পিকের জায়গা গুলির কাছেই প্রায় ৬ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এক রেসের ট্র্যাক তৈরী করা হচ্ছে, যা সবচেয়ে দ্রুত বেগে গেলে ৯৭ সেকেন্ডে পাক দেওয়া যাবে ও সেটাকে যথেষ্ট ভাল ফল বলেই মনে করা হচ্ছে.