ন্যাটো জোটের সাধারণ সম্পাদক আন্ডের্স ফগ রাসমুসেন মুম্বাই শহরে সম্প্রতি ঘটা সন্ত্রাসের তীব্র সমালোচনা করেছেন. তিনি নিহত লোকেদের পরিবারবর্গকে তার তরফ থেকে আন্তরিক সমবেদনা জানিয়েছেন এবং কেন্দ্রীয় সরকারকেও তার সহানুভুতি ব্যক্ত করেছেন. গত বুধবারে মুম্বাই শহরের জনাকীর্ণ সব অঞ্চলে কয়েক মিনিটের ব্যবধানে তিন তিনটি বিস্ফোরণ ঘটে. সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ১৭ জন নিহত হয়েছেন এবং আরও ১৩১ জনকে হাসপাতালে পাঠাতে হয়েছে. তার মধ্যে ২৩ জনের অবস্থা আশংকাজনক. প্রত্যক্ষদর্শীরা মনে করেন, যে এই সন্ত্রাসমুলক ঘটনাবলী ঘটানোর পেছনে পাকিস্তানি সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী ‘লশকর-এ-তাইবার’ হাত থাকতে পারে. গত ২০০৮ সালের শরত্কালে মুম্বাইয়ে সন্ত্রাসবাদী হামলার পর এটাই প্রথম বড় মাপের সন্ত্রাসমুলক ঘটনা. সেসময়ে পাকিস্তানে শিবিরে শিক্ষাপ্রাপ্ত জঙ্গীদের হামলায় ১৬৬ জন প্রাণ হারায়. ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের মতে মুম্বাই পৃথিবীর অন্যতম বিপজ্জনক শহরে পরিণত হয়েছে, এই শহরে গত ১৯৯৩, ২০০২, ২০০৩, ২০০৬ ও ২০০৮ সালে বড় মাপের আতংকবাদী হামলা হয়.