আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার বিশেষজ্ঞরা রুশ দেশের উত্তরাঞ্চলের নিরাপত্তা মূল্যায়ণ করছেন. আর্খাঙ্গেলস্ক অঞ্চলে শুরু হয়েছে বহুমুখী দূর্ঘটনা বিরোধী প্রশিক্ষণ (১৩ -১৪ জুলাই) "আর্কটিকা – ২০১১". এর লক্ষ্য হল – এই অঞ্চলের পারমানবিক বিকীরণ ও দূষণ সংক্রান্ত বিপদের সঙ্গে মোকাবিলা করার ক্ষমতা পরীক্ষা করে দেখা.

    আর্খাঙ্গেলস্ক রাজ্য – এটি রাশিয়ার পারমানবিক জাহাজ নির্মাণ কেন্দ্র. এখানে পারমানবিক ডুবোজাহাজ পুনঃ প্রয়োগের জন্য সক্রিয় ভাবে কাজ করা হচ্ছে, তার সঙ্গেই ব্যবহৃত পারমানবিক জ্বালানী ও তেজস্ক্রিয় বর্জ্য পদার্থ নিয়ে কাজ করা হয়ে থাকে. এই অঞ্চলে তাই নিরাপত্তা প্রশ্নের উপরে বেশী করে জোর দেওয়া হয়ে থাকে. রাশিয়ার পারমানবিক শক্তি সংক্রান্ত বিষয়ের নেতৃত্বদানকারী বিশেষজ্ঞরা এখানে আঞ্চলিক ভাবে পারমানবিক বিকীরণ নিয়ন্ত্রণ ও দূর্ঘটনার সম্ভাবনা সম্বন্ধে দ্রুত প্রতিক্রিয়া করতে পারে এই রকমের কেন্দ্র তৈরী করেছেন.

    "আর্কটিকা ২০১১" নামের বহুমুখী প্রশিক্ষণে সমস্ত ব্যবস্থার কাজের মান নির্ধারণ করা হবে, তা হতে চলেছে সিয়েভেরোদ্ভিনস্কে জ্ভিয়োজদোচকা নামের জাহাজ মেরামত কারখানাতে. এই কারখানাটি দেশে প্রথম পারমানবিক জাহাজ নির্মাণ হওয়া শুরুর সময় থেকে কাজ করছে. ১৯৫৯ সাল থেকে এখানে বহু পারমানবিক জাহাজের মেরামত ও সার্ভিসের কাজ হয়েছে. এখানে কাজকর্মের উপরে নজর রাখবেন আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার কর্মীরা, এই কথা উল্লেখ করে আর্খাঙ্গেলস্ক রাজ্যের প্রশাসনের তথ্য দপ্তরের সচিব রোমান সোকোলভ বলেছেন:

    "সমস্ত রকমের কাজই আর্খাঙ্গেলস্ক রাজ্যের প্রশাসনের পরিস্থিতি যোগাযোগ কেন্দ্র থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হবে. এখানে কাহিনী তৈরী করা হয়েছে যে, পারমানবিক ডুবোজাহাজ পুনঃ প্রয়োগের সময়ে এক দূর্ঘটনা ঘটেছে, যার ফলাফল নির্মূল করতে হবে. এই প্রশিক্ষণের শেষে মূল্যায়ণ করে দেখা হবে যেমন বাহিনী ও রসদের পরিস্থিতি, যা এই অঞ্চলের বিপর্যয় কালীণ অবস্থার জন্য তৈরী রাখা হয়েছে, তেমনই এই বাহিনীর বিন্যাসের কাজে দ্রুত উপযুক্ততা ও খবর আদান প্রদানের গুণমান. পরীক্ষা করা হবে পারমানবিক বিপর্যয়ের সময়ে প্রতিক্রিয়া করার উপযুক্ত ব্যবস্থার মৌল গুলিকে যা আজ রয়েছে সিয়েভেরোদ্ভিনস্কে জ্ভিয়োজদোচকা নামের জাহাজ মেরামত কারখানাতে ও সেভমাশ কারখানাতে, তাছাড়া প্রশাসনের আঞ্চলিক কেন্দ্রে ও বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের দপ্তরে এবং রাশিয়ার আবহাওয়া ও পরিবেশ পর্যবেক্ষণ দপ্তরের কেন্দ্রে".

    তাত্ক্ষণিক পারমানবিক পরিস্থিতি ও তার পরিবর্তনের পূর্বাভাস, যা বিশেষ ধরনের সংবেদনশীল যন্ত্র গুলি নির্ণয় করবে, তা হওয়া দরকার সবচেয়ে বেশী কার্যকরী, যার ফলে সম্ভব হবে স্থানীয় জনসাধারনকে জানান দেওয়ার সময় কমানো ও ১০ মিনিট সময়ের মধ্যে প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত ব্যবস্থা নেওয়া. সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই আর্খাঙ্গেলস্ক রাজ্যে সম্পূর্ণ ভাবে স্বয়ংক্রিয় পারমানবিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা কাজ করতে শুরু করবে. একই ধরনের ব্যবস্থা এখন মুরমানস্ক অঞ্চলে, যেখানে রাশিয়ার উত্তরাঞ্চলের সবচেয়ে বড় পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র কোলস্ক কেন্দ্র রয়েছে, সেখানে কাজ করছে. পারমানবিক নিয়ন্ত্রণ ও পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থা রাশিয়ার উত্তরাঞ্চলে স্থাপনের উদ্যোগ ও ব্যয় বহন করেছে ইউরোপীয় পুনর্গঠন ও উন্নয়ন ব্যাঙ্ক. ইউরোপীয় জনগনের তাদের উত্তর দিকের প্রতিবেশীর নিরাপত্তা সম্বন্ধে উদ্বেগ সম্পূর্ণ ভাবেই বোধগম্য.

    যে কোন ধরনের পারমানবিক ও আণবিক বিপর্যয় জনক পরিস্থিতিতে এই অঞ্চলের তৈরী থাকা ও তার মোকাবিলায় সক্রিয় ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়ে স্বাধীন মূল্যায়ণ করবেন আন্তর্জাতিক পারমানবিক শক্তি সংস্থার বিশেষজ্ঞরা. এই সংস্থার মিশন আর্খাঙ্গেলস্ক এলাকায় কাজ করবেন ১৪ই জুলাই পর্যন্ত.