সিরিয়ার বেশির ভাগ বিরোধী শক্তি দেশের সরকারের সাথে আলাপ-আলোচনা বয়কট করেছে. বিরোধীপক্ষের প্রতিনিধিরা ঘোষণা করেছে যে, সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসদ যতদিন তাদের প্রধান প্রধান দাবি পুরণ না করছেন, ততদিন তারা আলাপ-আলোচনায় অংশগ্রহণ করবে না. প্রথম দাবি হল- প্রতিবাদ আন্দোলন কঠোরভাবে দমন করা বন্ধ করা দরকার. দ্বিতীয়ত, জেলখানা থেকে সমস্ত রাজনৈতিক বন্দীকে মুক্ত করা, জেলখানায় যাদের সংখ্যা এখন প্রায় এক হাজার জন. এর প্রাক্কালে, ১০ই জুলাই সিরিয়ার সরকার বিরোধীপক্ষের সাথে জাতীয় সংলাপ শুরু করার কথা ঘোষণা করেছিল. কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিরা উল্লেখ করেন যে, ঐ দিন থেকে ক্ষমতাসীন পার্টির পক্ষসমর্থক ও তার বিরোধীপক্ষের মাঝে দুদিনের সাক্ষাত্ শুরু হবে. বিরোধী গ্রুপগুলির প্রতিনিধিরা, যারা তবুও আলাপ-আলোচনায় সম্মত হয়েছিল, দাবি করে যে, রাষ্ট্রের রাজনৈতিক জীবনে ক্ষমতাসীন আরব সমাজতান্ত্রিক পুনরুথ্থান পার্টির (বাআস পার্টির) প্রাধান্য অবিলম্বে বাতিল করা হোক. তিন মাস ধরে সিরিয়ায় সরকারবিরোধী আন্দোলন চলছে. আন্দোলনের অংশগ্রহণকারীরা রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের পদত্যাগ এবং রাজনৈতিক সংস্কার সাধনের দাবি করছে.