রাশিয়ায় ভোলগা নদীতে রবিবার “বুলগারিয়া” নামে যাত্রীবাহী স্টীমার ডুবে গেছে, যাতে বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী ১৯৯ জন যাত্রী ছিল. বিপর্যয় ঘটেছে রাশিয়ার তাতারস্তান প্রজাতন্ত্রে উপকূল থেকে তিন কিলোমিটার দূরে. বর্তমানে জানা গেছে যে, দুর্ঘটনার সময় স্টীমারটি প্রতিকূল আবহাওয়ার পরিবেশে পড়েছিল. তত্পর প্রতিক্রিয়ার সদর দপ্তর থেকে প্রাপ্ত শেষ তথ্য অনুযায়ী, ৭৯ জনকে বাঁচানো সম্ভব হয়েছে. ডুবে যাওয়া স্টীমারে থাকা লোকেদের সংখ্যা সংক্রান্ত তথ্য ক্রমাগত বদলাচ্ছে. এখনও পর্যন্ত আটজনের দেহ পাওয়া গেছে, জানিয়েছে “রিয়া নোভস্তি” সংবাদ সংস্থা. স্টীমারটি ডুবে যাওয়ার জায়গায় ব্যাপক উদ্ধার-কাজ চালানো হচ্ছে. প্রায় ১০০ জন ডুবুরী বেঁচে থাকা লোকেদের অনুসন্ধান চালাচ্ছে. দুর্ঘটনার সময় স্টীমারে থাকা ১০০ জনেরও বেশি লোক এখনও নিখোঁজ. তবে, নিহতদের সংখ্যা নিখোঁজদের সংখ্যার সমান হতে পারে. এ হল উদ্ধারকর্মীদের তথ্য. বেঁচে থাকা-দের খুঁজে পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম, সোমবার বলেছেন ভোলগা অঞ্চলের বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি. রাশিয়ার শৃঙ্খলা রক্ষা সংস্থাগুলি স্টীমারডুবীর কারণ তদন্ত করা শুরু করেছে. বিশেষজ্ঞদের কথায়, খারাপ আবহাওয়ায় স্টীমারটি ডুবে যেতে পারে খুব বেশি ওজনের জন্য, কারণ স্টীমারটি এত বেশি যাত্রী বহনের জন্য উপযুক্ত ছিল না. এ স্টীমারটি নির্মিত হয়েছিল ১৯৫৫ সালে চেকোস্লোভাকিয়ায়. তারপর রাশিয়ায় তার পুনর্গঠন করা হয়. ২০০৭ সালে তার প্রযুক্তিগত অবস্থা পরীক্ষিত হয় এবং তা ব্যবহারের উপযুক্ত বলে ঘোষণা করা হয়, রাশিয়ার পরিবহণ মন্ত্রণালয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ সংস্থা.