রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোটের সম্মিলিত রকেট বিরোধী ব্যবস্থার প্রকল্প ভবিষ্যতের জন্য এক ব্যূহ ভেদ করার মতো ঘটনা হতে পারতো, আর ঠাণ্ডা যুদ্ধের সময় থেকে পরম্পরায় চলে আসা স্ট্র্যাটেজিক স্থিতিশীলতার প্রশ্ন গুলি বিরোধের পাতলা আস্তরণ হঠিয়ে দিতে পারতো. এই রকমের মত রাশিয়া -২৪ টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে প্রকাশ করেছেন রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই লাভরভ. তিনি এখানে পশ্চিমের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়ে প্রধান বিষয় গুলিকে স্পর্শ করেছেন.

    পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান যে সমস্ত প্রশ্ন গুলির উত্তর দিয়েছেন তার অসম্পূর্ণ তালিকার মধ্যে ছিল ইউরোপীয় সংঘ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভিসা বিহীণ যাতায়াতের ব্যবস্থা, রকেট বিরোধী ব্যবস্থা তৈরীর সমস্যা নিয়ে আলোচনায় বর্তমানের পরিস্থিতি, লিবিয়ার সমস্যার সমাধানের পথ ও ইউরো অঞ্চলের অর্থনৈতিক সমস্যা ইত্যাদি. প্রধান মনোযোগ লাভরভ দিয়েছেন সবচেয়ে কঠিন প্রশ্নে – ইউরোপ্রো তৈরী নিয়ে আলোচনা বিষয়ে.

    মন্ত্রীর কথামতো, এটা স্পষ্টই আমেরিকার প্রকল্প. বর্তমানে এই প্রকল্পে ন্যাটো জোট কে জুড়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে. আমাদের স্পষ্ট করে বুঝতে হবে যে, এই প্রকল্পের নকশা – আমেরিকার. ইউরোপ এতে শুধু দ্বিতীয় সারির সহযোগী জিনিস গুলিতে সামান্য কিছু অবদান রাখতে পারে. তাই রাশিয়ার প্রধান আলোচনার সহকর্মী হল – ওয়াশিংটন. রাষ্ট্রপতিদের পরিষদের মধ্যেও আলোচনার দল রয়েছে. আপাততঃ আলোচনা একই জায়গায় দাঁড়িয়ে পা ঠুকছে. এখানে কথা হচ্ছে প্রযোজনীয় রাজনৈতিক কাঠামো তৈরীর, যার উপস্থিতিতে এই প্রকল্পের নির্দিষ্ট সামরিক প্রযুক্তি সংক্রান্ত বিষয়ের সমাধান সম্ভবপর হয়, এই কথা উল্লেখ করে সের্গেই লাভরভ বলেছেন:

"এই কাঠামো কয়েকটি মূল্যবান মৌল বিষয় নির্দিষ্ট করবে. প্রথমতঃ, এই প্রকল্প হওয়া দরকার সমানাধিকার বিশিষ্ট, সম্মিলিত ও তার ভিত্তি হওয়া উচিত্ কোন এক তরফা বিশ্লেষণের উপর বিতর্ক রহিত গ্রহণের উপর না ভিত্তি করে (এখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কথা হচ্ছে), আর তার ভিত্তি হওয়া উচিত্ বুদ্ধি প্রসূত সম্মিলিত সামরিক বিশ্লেষণের ফল. আপাততঃ এটা করা সম্ভব হচ্ছে না".

রাশিয়ার রকেট সংক্রান্ত বিপদ সম্বন্ধে ও তার প্রসার এবং সময় কাল আর তা কবে বাস্তবেই বিপজ্জনক হতে পারে ইউরোপ, রাশিয়া ও তার ওপরে আমেরিকার জন্য তাই নিয়ে এই পরিস্থিতিতে ধারণা অন্য রকমের রয়েছে. মস্কোতে মনে করা হয় যে, আমেরিকার পরিকল্পনা রাশিয়ার উদ্বেগকে হিসাবের মধ্যে না ধরে করলে এমন এক পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে যে, তার সীমান্তের কাছে এমন সব পরিকাঠামো তৈরী হতে পারে, যা রুশ প্রজাতন্ত্রের স্ট্র্যাটেজিক ক্ষমতার জন্যই সমস্যার. যাতে এই ধরনের উদ্বেগ না থাকে, তাই মস্কো প্রস্তাব করেছে ইউরোপ্রো রাশিয়ার বিরুদ্ধে লক্ষ্য করা হবে না ও তার যে কোন অংশগ্রহণকারীর দিকেও লক্ষ্য করা হবে না, এই বিষয়ে চুক্তি করার. আমেরিকার লোকেরা এটার জন্য তৈরী নয়, এই কথা বলেছেন সের্গেই লাভরভ ও যোগ করেছেন:

"আমাদের অবস্থান একেবারেই স্পষ্ট যদি বলা হয় যে এই ব্যবস্থা রাশিয়ার বিরুদ্ধে নয়, তাহলে এটা কাগজে কলমে কেন চুক্তি হিসাবে করা যাবে না? আমরা আপাততঃ উত্তর পাই নি, কিন্তু আশা করছি ওয়াশিংটনে ১১ -১৩ জুলাইয়ের সাক্ষাত্কারের সময়ে আমরা এই বিষয় আবার স্পর্শ করবো ও শুনবো আমাদের আমেরিকার সহকর্মীরা কি বলছেন. আমরা একেবারেই চাই না যে, এই প্রকল্প বিরোধের কারণ হোক, বরং উল্টো মনে করি যে, রাশিয়া যে সমস্ত প্রস্তাব একাধিকবার করেছে এই ক্ষেত্রে সহযোগিতা করার জন্য, তা খুবই বিচার করে দেখার মতো ও সহমতে আসার জন্য পথ খোঁজার মতো, যাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ বা রাশিয়া কারোরই স্বার্থ ক্ষুণ্ণ না হয়".

তা স্বত্ত্বেও, লাভরভ মনে করেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের পুনর্বিন্যাস কাজ করেছে. রাশিয়া বর্তমানে পেয়েছে আরও ভরসা যোগ্য, অনুমান যোগ্য ও আরও পরম্পরা মেনে চলা এক সহকর্মী দেশকে. মন্ত্রী বলেছেন, মস্কো এটার কদর করে.

ইউরোপীয় সংঘের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সম্বন্ধে কথা বলতে গিয়ে, তিনি তাঁর বিশ্বাস প্রকাশ করেছেন যে, ইউরোপীয় সংঘে রাজনৈতিক ইচ্ছা রয়েছে গ্রীসের পরিস্থিতি, স্পেন ও পর্তুগালের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের. রাশিয়া নিজেদের তরফ থেকে সক্রিয় ভাবেই সমস্যা সমাধানে সাহায্য করবে, বড় কুড়িটি দেশের মধ্যে আরও কাজ করে. মন্ত্রীর কথামতো, এখানে প্রধান ব্যাপার হল, আন্তর্জাতিক মুদ্রা ব্যবস্থার সংশোধন শেষ অবধি করা, যা আজ রাশিয়া ও তার ব্রিকস সহকর্মী দেশ গুলি এগিয়ে দিচ্ছে.