বেশির ভাগ সন্ত্রাসবাদী সংস্থার কার্যকলাপ “আল-কাইদা” থেকে স্বতন্ত্রভাবে. এ সম্বন্ধে বুধবার বলেছেন রাশিয়ার ফেডারেল নিরাপত্তা বিভাগের ডিরেক্টর আলেক্সান্দর বোর্তনিকোভ সাঙ্কত-পিতারবুর্গে বিশেষ বিশেষ বিভাগগুলির প্রধানদের বিংশতিতম অধিবেশনে. তাঁর কথায়, ইন্টারনেট পরিণত হয়েছে নতুন নতুন সন্ত্রাসবাদীদের আকর্ষণ করা ও ভর্তি করা, তাদের তালিম দেওয়া, তাদের কার্যকলাপের পরিকল্পনা ও সঙ্গতি সাধন করার হাতিয়ারে. এদিকে, বুধবার “রস্সিইস্কায়া গাজেতা” রাশিয়ার সন্ত্রাসবাদীদের পৃষ্ঠপোষকদের তালিকা প্রকাশ করেছে. এদের মধ্যে আছে – কুখ্যাত জঙ্গী নেতা, যেমন দোকু উমারোভ, আবার ব্যাপক জনসমাজের অজানা, আত্মগোপনে থাকা সন্ত্রাসবাদীরা. সংস্থাগুলির তালিকায় শুধু “আল-কাইদা” অথবা “ইমারাট কাভকাজ” সংস্থার মতো কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদী সংস্থাই নেই.তাতে আছে যথেষ্ট অদ্ভুত নামের সংস্থাও, যেমন “রাশিয়ার আর্যদের বৈদিক সংস্কৃতির সমিতি” অথবা “শয়তানের শুভ সম্প্রদায়”.