লিবিয়ার সরকার মুয়ম্মর গদ্দাফির শাসন ক্ষমতাকে উত্খাত করতে প্রচেষ্টারত বিরোধীপক্ষের সাথে আলাপ-আলোচনা চালাচ্ছে. এ সম্বন্ধে শুক্রবার "রয়টার" সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন জামাহিরির নেতার মেয়ে আইশা গদ্দাফি. এর প্রাক্কালে লিবিয়ার বিরোধীপক্ষ জামাহিরির সরকারের সাথে ভবিষ্যত্ যোগাযোগ না করার কথা ঘোষণা করেছিল. গদ্দাফির মেয়ে উল্লেখ করেন যে, দেশের কর্তৃপক্ষ বিদ্রোহীদের সাথে সহয়োগিতা করতে প্রস্তুত, যাতে লিবিয়ায় রক্তক্ষয় বন্ধ করা যায়. তিনি তাছাড়া জোর দিয়ে বলেন যে, লিবিয়ার নেতার নিজের দেশ ছেড়ে যাওয়ার অভিপ্রায় নেই. আইশা গদ্দাফি বলেন, “কোথায় আপনারা চান যে তিনি চলে যান? এটা তাঁর দেশ, তাঁর মাটি, তাঁর জনগণ”. গদ্দাফির মেয়ে বলেন যে, তাঁর পিতা নিজের জনগণের জন্য প্রতীক এবং নেতা. এদিকে, ২০১১ সালের জুন মাসে আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালত মুয়ম্মর গদ্দাফিকে গ্রেপ্তারের পরোয়ানা জারি করেছে. আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালতের অভিশংসক দপ্তর তাঁর বিরুদ্ধে, তাঁর ছেলে সেইফ অল-ইস্লামের বিরুদ্ধে এবং লিবিয়ার গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান আব্দুল্লা অস্-সেনুস্সির বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে সামরিক অপরাধের.