সুদানের রাষ্ট্রপতি আল-বশির গতরাতে রাষ্ট্রীয় সফরে চীনে পৌঁছেচেন. গত রবিবার সন্ধ্যায় তার তেহেরান থেকে বেইজিং পৌঁছানোর কথা ছিল এবং তার তিনদিন ব্যাপী রাষ্ট্রীয় সফর শুরু হওয়ার কথা ছিল চীনের চেয়ারম্যান হু জিন টাওয়ের সাথে সাক্ষাত্কার দিয়ে. কিণ্তু তা মুলতুবি রাখতে হয়. এবার আশা করা যাচ্ছে, যে হু জিন টাওয়ের সঙ্গে তার সাক্ষাত্কার ঘটবে আগামী বুধবার. সুদানের পররাষ্ট্রমন্ত্রক পরিবেশিত খবর অনুযায়ী, গত রবিবারে আল-বশিরের বিমান তুর্কমেনিয়ার আকাশসীমান্ত অতিক্রম করা মাত্র বিমানচালকদের চীনে পৌঁছাবার জন্য অন্য কোনো রুটের সন্ধান করার নির্দেশ দেওয়া হয়. তত্ক্ষণাত বিকল্প কোনো রাস্তা খুঁজে না পেয়ে তারা বিমানটিকে ইরানে ফেরত নিয়ে যেতে বাধ্য হন. ২০০৯ সালে আন্তর্জাতিক ফৌজদারী আদালত দারফুরে কৃত অপরাধের জন্য সুদানের রাষ্ট্রপতির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করে. চীন আল-বশিরকে প্রতিশ্রুতি দেয়, যে চীনে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে না. চীন সুদানের অর্থনীতিতে বিনিয়োগকারী প্রথমসারির দেশগুলির অন্যতম. আফ্রিকার দেশগুলির মধ্যে চীনের সাথে বাণিজ্যিক লেনদেনের ক্ষেত্রে সুদান তৃতীয় স্থান অধিকার করে.