0মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষ দক্ষিণ চীনা সাগরের অঞ্চলে বিরোধ তীব্র হয়ে ওঠা উপলক্ষে ফিলিপাইনকে সাহায্য করার অভিপ্রায়ের কথা ঘোষণা করেছে. এ সম্বন্ধে মার্কিনী পররাষ্ট্র সচিব হিলারী ক্লিন্টন বলেছেন ফিলিপাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতের পরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে. তাঁর কথায়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ চীনা সাগরে সাম্প্রতিক ঘটনাবলিতে উদ্বিগ্ন এবং অস্ত্র সরবরাহ করে ফিলিপাইনকে সাহায্য করতে প্রস্তুত. ক্লিন্টন ব্যাখ্যা করে বলেন নি, এ অঞ্চলে সঙ্ঘর্ষ বৃদ্ধির ক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক শক্তি ব্যবহৃত হবে কি না. ভূভাগীয় বিতর্কে জড়িত রয়েছে পাঁচটি রাষ্ট্র – ব্রুনেই, ভিয়েতনাম, চীন, মালয়েশিয়া ও ফিলিপাইন. বিগত কয়েক সপ্তাহে এ অঞ্চলকে কেন্দ্র করে বিতর্ক যথেষ্ট তীব্র হয়ে উঠেছে. পশ্চিমী বিশেষজ্ঞরা উল্লেখ করেছেন যে, চীনের নৌবাহিনীর সুযোগ-সম্ভাবনার দ্রুত বিকাশ এবং এ অঞ্চলে প্রভাব বিস্তারের জন্য চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্রমবর্ধমান প্রতিদ্বন্দ্বিতার পরিবেশে দক্ষিণ চীনা সাগরে স্থিতিশীলতা ক্ষুণ্ণ হতে পারে শুধু তাইই নয়, সশস্ত্র সঙ্ঘর্ষও ঘটতে পারে.