রাশিয়াতে আরও দ্রুত সংশোধনের পথে অন্তরায় হয়েছে অলস সরকারি কর্মচারীদের দল ও দুর্নীতি. এই বিষয়ে ঘোষণা করেছেন সেন্ট পিটার্সবার্গের আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক ফোরামের শেষ কাজের দিনে দিমিত্রি মেদভেদেভ "ফাইনান্সিয়াল টাইমস" পত্রিকাকে একটি বড় ইন্টারভিউ দিয়ে. প্রভাবশালী ব্রিটিশ সংবাদপত্রের সাংবাদিকেরা রাশিয়ার নেতাকে বহু আভ্যন্তরীণ ও পররাষ্ট্র রাজনীতি বিষয়ক প্রশ্ন করেছেন.

    রাশিয়ার প্রয়োজন আরও খোলাখুলি রাজনৈতিক প্রতিযোগিতা. মেদভেদেভের কথামতো, এক সময়ে রাশিয়ার লোকসভাতে রাজনৈতিক দলগুলির অন্তর্ভুক্তির প্রশ্নে শতকরা সাত শতাংশ ভোট পাওয়ার বাধা দেশের রাজনৈতিক শক্তি গুলির কাঠামো তৈরীতে সাহায্য করেছিল. আর এখন সময় এসেছে অন্য স্তরের জন্য – এই বাধাকে শতকরা পাঁচ শতাংশ অবধি নামিয়ে আনার, আর হতে পারে এমনকি তিন শতাংশ পর্যন্তও, যাতে রাশিয়ার পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষে "দেশের সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরাই থাকতে পারেন" ও তার মধ্যে দক্ষিণপন্থীরাও.

    এই বছরে সাম্প্রতিক ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ দিন পালন করা হচ্ছে – সোভিয়েত দেশ ভেঙে যাওয়ার কুড়ি বছর. যদিও বহু সংখ্যক লোকের জন্য এই ঘটনা ছিল অত্যন্ত মর্ম বিদারক, তবুও বর্তমানের রাষ্ট্রপতি সেই ধারণার সঙ্গে একমত নন যে – এটা বিংশ শতাব্দীর সবচেয়ে বড় ভূ রাজনৈতিক বিপর্যয়. দিমিত্রি মেদভেদেভ বিশেষ করে উল্লেখ করেছেন যে, রাশিয়া প্রতিবেশী দেশ গুলির সঙ্গে আন্তরিক ও ভাল সম্পর্ক বজায় রাখতে চায় দীর্ঘস্থায়ী ও চিরস্থায়ী ভাবে. কিন্তু এর মানে এই নয় যে, মস্কো স্বাধীন রাষ্ট্র সমূহের রাষ্ট্রগুলিকে নিজের তরফ থেকে কোন রকমের শর্ত নির্দেশ করতে চাইবে. আর এখানে কোন ব্যাপার নয় যে, কোন একটা দেশ আছে, যাকে রাশিয়ার তরফ থেকে সিদ্ধান্ত বা সহমতে না পৌঁছতে পারলে স্পর্শ করা যাবে না: তাই মেদভেদেভ যোগ করে বলেছেন: "একবিংশ শতাব্দীতে খুবই হাস্যকর হবে বললে যে, বিশ্ব কোন একটা ভাগে বিভাজিত ও কোন একটা ভাগের জন্য কোন এক বিশেষ দেশ দায়িত্বশীল, এই ভাগের জন্য – আমেরিকা, আর এই ভাগের জন্য – রাশিয়া, আর এটার জন্য – চিন". বিশ্ব সত্যই বহু মেরু বিশিষ্ট, আর এখানে বিশেষ হল প্রতিবেশী দেশ গুলির সঙ্গে বিশেষ ও অত্যন্ত ভাল সম্পর্ক তৈরী করতে পারা.

    ২০০৮ সালের আগষ্ট মাসের ঘটনাকেই মেদভেদেভ বলেছেন সবচেয়ে কঠিন পরীক্ষার সময় বলে, যখন জর্জিয়া দক্ষিণ অসেতিয়ার উপরে সশস্ত্র আক্রমণ করেছিল. মেদভেদেভের কথামতো, আগ্রাসনের বিরুদ্ধে প্রতি আক্রমণের সিদ্ধান্ত নেওয়া খুব সহজ ছিল না, কিন্তু এখানে প্রধান হয়েছিল – রাশিয়ার পক্ষে তার জাতীয় স্বার্থ বজায় রাখা ও এই বিরোধের বৃদ্ধি না হতে দেওয়া.

    ব্রিটেনের এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেছেন যে, রাশিয়া দ্রুত উন্নতিশীল চিনের তরফ থেকে কোন বিপদ সঙ্কেত দেখতে পাচ্ছে কি না? দিমিত্রি মেদভেদেভের কথামতো, এটা – আসলেই একটা ভাল সুযোগ, কারণ এই চিন দেশের পক্ষেই সম্ভব নিজেদের জিনিস দিয়ে রাশিয়ার গ্রাহকদের বিশাল প্রয়োজন মেটানো. আর একই সঙ্গে রাশিয়ার উচিত হবে প্রতিবেশীর উন্নতির উপরে খেয়াল করা ও নির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত নেওয়া. অংশতঃ, তাদের কাছ থেকে উদাহরণ নেওয়া, যদিও প্রতিটি দেশই অনন্য.

    মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়ে মেদভেদেভের বক্তব্য অনুযায়ী তা এখন ভাল হয়েছে, আর এর জন্য কাজ করেছে আমেরিকার নূতন প্রশাসন এবং অবশ্যই রাষ্ট্রপতি ওবামা নিজে. রাশিয়ার নেতা ঘোষণা করেছেন যে, তাঁর আমেরিকার সহকর্মীর সঙ্গে কমরেড সুলভ এক সম্পর্ক তৈরী হয়েছে. ওবামা – একজন আধুনিক ব্যক্তি, যিনি শুধু আমেরিকার জন্যই পরিবর্তন চাইছেন না, এমনকি সারা বিশ্বের নিয়মেও পরিবর্তন চাইছেন. সেই কারণেই মেদভেদেভ আশা করেন যে, ওবামাকে যেন দ্বিতীয় দফায় পুনর্নির্বাচিত করা হয়.

    এই দিন গুলিতে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে সিরিয়ার ঘটনা নিয়ে সেই দেশ সংক্রান্ত নিষেধ সিদ্ধান্ত তৈরী করা হচ্ছে. মেদভেদেভ আবার জোর দিয়ে বলেছেন যে, রাশিয়া এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে নিজেদের বেটো প্রয়োগ করবে, যাতে তা গৃহীত না হয়. অন্ততঃ সেই ভাবে, যে রকম অবস্থায় এখন এই দলিল রয়েছে. দিমিত্রি মেদভেদেভের কথামতো, তাঁর রাষ্ট্রপতি বাশার আসাদের জন্য মানবিক কারণেই দুঃখ হয়, যাঁর পরিস্থিতি খুবই কঠিন: সিরিয়ার নেতা চাইছেন রাজনৈতিক সংশোধন, আর একই সময়ে "তিনি সেই গুলি নিয়ে দেরী করে ফেলেছেন, এই কারণেই মানুষের প্রাণ যাচ্ছে, যা হয়তো এড়ানো সম্ভব ছিল".

    একই সঙ্গে মস্কো সিরিয়াতে লিবিয়ার মতো কাহিনী ঘটতে দেবে না, যখন এক রাষ্ট্রসংঘের এক "খুব খারাপ নয়" এমন এক সিদ্ধান্তকে "ফাঁকা কাগজ" বানিয়ে দেওয়া হয়েছে বিনা প্রয়োজনের এক "অর্থহীণ সামরিক অপারেশন"কে ঢাকা দেওয়ার জন্য. সিদ্ধান্তের মানে করা দরকার আক্ষরিক ভাবেই, তা প্রসারিত ভাবে নয়, উল্লেখ করেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি. কিন্তু এটা কোন ভাবেই তাঁর গাদ্দাফির কৃত কর্মের প্রতি মনোভাবের পরিবর্তন করে না ও আরও কিছু দিন আগে ফ্রান্সের দোভিল শহরে সেই সমর্থন, যা মেদভেদেভ "বড় আট"টি দেশের নেতাদের সঙ্গে একমত হয়ে লিবিয়া সম্পর্কে ঘোষণায় করেছেন.