সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের জনগণের প্রতি সম্বোধনের পরে ডামাস্কাসের উপকণ্ঠে এবং সিরিয়ার অন্যান্য শহরে প্রতিবাদ আন্দোলন হয়েছে. আসদ নিজের সম্বোধনে সিরিয়াবাসীদের প্রতিশ্রুতি দেন যে, সংবিধানে সংশোধন আনা হবে এবং তাড়াতাড়ি “জাতীয় সংলাপ” শুরু হবে. তাছাড়া তিনি ক্ষমাদান এবং আগস্টে পার্লামেন্টারী নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি দেন. বিরোধীদের পক্ষসমর্থকরা তাঁর প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছে জনসাধারণের দাবির সাথে সুসঙ্গত নয় বলে. বিরোধীপক্ষ সিরিয়ায় শাসন ক্ষমতা বদলের দাবি করছে. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা করেছে যে, আসদের কাছ থেকে কথা নয় কাজের অপেক্ষা করছে, প্রাক্কালে বলেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র সচিব. তুরস্ক, যেখানে সিরিয়ার শরণার্থীদের সংখ্যা ১০ হাজারে পৌঁছেছে, ঘোষণা করেছে যে, কথাই যথেষ্ট নয়. আঙ্কারা আসদকে আহ্বান জানিয়েছে তাড়াতাড়ি ব্যাপক গণতান্ত্রিক সংস্কার চালানোর. ইউরোসঙ্ঘ সিরিয়ার নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে নতুন বাধানিষেধ প্রস্তুত করছে, আর মস্কোয় প্রস্তুতি চালানো হচ্ছে সিরিয়ার বিরোধীপক্ষের প্রতিনিধিদের সাথে আলাপ-আলোচনার. আশা করা হচ্ছে যে, আফ্রিকা সংক্রান্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির বিশেষ প্রতিনিধি মিখাইল মার্গেলোভ সিরিয়ার বিরোধীপক্ষের প্রতিনিধিদলের সাথে সাক্ষাত্ করবেন ২৭শে জুন মস্কোয়. রাশিয়া সিরিয়ার বিরোধীপক্ষকে সিরিয়ার সরকারের সাথে সংলাপ শুরু করার জন্য বোঝাতে চায়.