সাঙ্কত-পিতারবুর্গে বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে পিতারবুর্গের আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সম্মেলন, যা ১৮ই জুন পর্যন্ত চলবে “নতুন যুগের জন্য নেতারা” স্লোগানে. সাঙ্কত-পিতারবুর্গের অর্থনৈতিক সম্মেলনের প্রথম দিন পরম্পরা অনুযায়ী আন্তর্জাতিক বিষয়ের প্রতি উত্সর্গীত – বিশেষজ্ঞরা আলোচনা করছেন আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সম্পর্ক. এ সম্মেলনের কাঠামোতে, বিশেষ করে, উপস্থাপিত হবে তেল ও গ্যাসের বিশ্ব বাজারের সমীক্ষা, ব্যবসায়িক সংলাপঃ রাশিয়া- মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া-ইউরোসঙ্ঘ, রাশিয়া-ভারত. রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্র্যাটেজিক শরিকানার প্রধান প্রধান সমস্যা আলোচনার সময় বিতর্কের অংশগ্রহণকারীরা মনোযোগ নিবদ্ধ করবেন বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় রাশিয়ার যোগদানের প্রতি এবং সহযোগিতার মুখ্য শাখাগুলিতে প্রাধান্য নিরূপণের প্রতিঃ যেমন উচ্চ প্রকৌশল, পরিকাঠামো, পরিবহণ, যন্ত্রনির্মাণ, জ্বালানী ও বিদ্যুত্শক্তি এবং এভিয়েশনের ক্ষেত্রে. রুশ-ভারত সংলাপের বিশেষজ্ঞরা মনোযোগ নিবদ্ধ করবেন দীর্ঘকালীন বিকাশের স্ট্র্যাটেজিগুলির সমন্বয় সাধনের প্রতিঃ রাশিয়ার “স্ট্র্যাটেজি ২০২০” এবং “ভারত. ২০২০ সালের প্রতি দৃষ্টিপাত”. বিতর্কের সময় কথা উঠবে দু দেশের মাঝে তথ্যের বাধা অতিক্রম সম্পর্কে, মিলিত নবায়নী প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কে, দু দেশের বৈজ্ঞানিক গবেষণা ও প্রাকৌশলিক উদ্ভাবনের ফলাফলের ব্যবসায়ীকরণ সম্পর্কে. সম্মেলনের উদ্বোধনী সমারোহ হবে শুক্রবার. পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনের কাঠামোতে “নতুন যুগের জন্য নেতারা” বিষয়ে বক্তৃতা দেবেন দমিত্রি মেদভেদেভ এবং চীনা গণপ্রজাতন্ত্রের সভাপতি হু জিনতাও. রাজনৈতিক নেতাদের সাথে সাথে এ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করছেন পৃথিবীর ২৫০টিরও বেশি বড় বড় কোম্পানির নেতারা, সেই সঙ্গে “ফোর্বস” ও “ফর্তুন” নামে রেটিং কোম্পানির নেতারাও. সব মিলিয়ে, সাঙ্কত-পিতারবুর্গে এসেছেন রাজনৈতিক ও কারবারী মহলের প্রায় ৫০০০ প্রতিনিধি, ৭০টিরও বেশি দেশের সরকারী প্রতিনিধিদল, এবং তাছাড়া বিশিষ্ট বিজ্ঞানী ও সমাজকর্মীরা.