শাংহাই সহয়োগিতা সংস্থারদেশগুলির নেতারা আস্তানা শীর্ষ সাক্ষাতের ফলাফলের ভিত্তিতে এক ঘোষণাপত্র গ্রহণ করেছেন, যাতে উত্তর আফ্রিকার ঘটনাবলির মূল্যায়ন করা হয়েছে এবং রকেটবিরোধী প্রতিরক্ষার সমস্যা সম্বন্ধে মত প্রকাশিত হয়েছে. শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার রাষ্ট্রনেতারা উত্তর আফ্রিকা ও নিকট প্রাচ্যে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি উপলক্ষে গুরুতর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন. তাঁরা এ অঞ্চলে তাড়াতাড়ি স্থিতিশীল পরিস্থিতি গড়ে তোলার পক্ষে মত প্রকাশ করেছেন. একই সঙ্গে সংস্থার রাষ্ট্রগুলি “উত্তর আফ্রিকা ও আরব প্রাচ্যের দেশগুলির বিশেষত্ব ও সাংস্কৃতিক-ঐতিহাসিক বৈশিষ্ট্য বিবেচনা করে” গণতান্ত্রিক বিকাশের পথে তাদের অগ্রগতি সমর্থন করেছে.শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার নেতারা ঘোষণাপত্রে জাতীয় আপোষ অর্জনের দিকে নির্দেশিত শান্তিপূর্ণ উপায়ে রাজনৈতিক সংলাপের পথে আভ্যন্তরীন সঙ্ঘর্ষ ও সঙ্কট মীমাংসা করার আহ্বান জানান. সংস্থার সদস্য দেশগুলি এ প্রসঙ্গে লিবিয়ায় সশস্ত্র সঙ্ঘর্ষ বন্ধ করার প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দিয়েছে. সংস্থা মনে করে সঙ্ঘর্ষে জড়িত সব পক্ষের দ্বারা রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের লিবিয়া সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত অক্ষরে অক্ষরে পালন করা দরকার. শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ সাক্ষাতের অংশগ্রহণকারীরা তাছাড়া রকেটবিরোধী প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে একতরফা ক্রিয়াকলাপের বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করেন. সংস্থার মতে, একটি দেশ বা সামান্য একসারি দেশের দ্বারা একতরফাভাবে এবং অসীমিতভাবে রকেটবিরোদী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার বৃদ্ধি স্ট্র্যাটেজিক স্থিতিশীলতা ও আন্তর্জাতিক নিরাপত্তার ক্ষতি সাধন করতে পারে. সংস্থার দেশগুলির নেতারা তথ্য ক্ষেত্রে বাস্তবভাবে দেখা দেওয়া নিরাপত্তার বিপদ সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করেন. শীর্ষ সাক্ষাতের অংশগ্রহণকারীরা আন্তর্জাতিক তথ্য নিরাপত্তার ক্ষেত্রে পারস্পরিক ক্রিয়াকলাপ সুদৃঢ় করার প্রস্তুতির কথা পুনরায় বলেন. ঘোষণাপত্রে সংস্থার দেশগুলির নেতারা মহাকাশকে শুধু শান্তিপূর্ণ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছেন. সংস্থার রাষ্ট্রনেতারা মহাকাশে অস্ত্র স্থাপন নিরোধ সংক্রান্ত বিধানিকভাবে বাধ্যতামূলক চুক্তি প্রণয়নের পক্ষে মত প্রকাশ করেন. শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার পরবর্তী  শীর্ষ সক্ষাত্ অনুষ্ঠিত হবে ২০১২ সালে চীনে, যার উপর এ সংস্থার সভাপতিত্বের ভার দেওয়া হবে. চীনের প্রস্তাব অনুযায়ী, চীনের সভাপতিত্বের বছরকে শাংহাই সহয়োগিতা সংস্থায় “সুপ্রতিবেশিতা ও মৈত্রীর বছর” হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে.