রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে সিরিয়া সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত সম্পর্কে ভোট হয় নি, বৃহস্পতিবার জানিয়েছে মার্কিনী প্রচার মাধ্যম. রাশিয়ার স্থিরবিশ্বাস নেই যে, এ সিদ্ধান্ত সিরিয়ায় রাজনৈতিক মীমাংসা অর্জনে সহায়তা করবে, সাংবাদিকদের বলেছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন. রাশিয়ার কূটনীতিজ্ঞের উক্তি উদ্ধৃত করে “নিউ-ইয়র্ক টাইমস” পত্রিকা লিখেছে, “আমরা উদ্বিগ্ন যে, এর ফল উল্টো হতে পারে”. আগে, বুধবার, ফ্রান্স এবং গ্রেট-বৃটেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের পুনর্বিবেচিত খসড়া সিদ্ধান্ত প্রচার করেছিল, যাতে সিরিয়ার সরকারের নিন্দে করা হয়েছে নিজের নাগরিকদের বিরুদ্ধে বল প্রয়োগের জন্য. খসড়ায় প্রণেতারা কোনো রকম সামরিক ক্রিয়াকলাপ অথবা সিরিয়ার সরকারের বিরুদ্ধে বাধানিষেধের কথা এড়িয়ে গেছেন. রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য হিসেবে ভেটো-র অধিকার থাকা রাশিয়া ও চীন প্রচার মাধ্যমের জন্য সিরিয়ার নিন্দা সম্বলিত বিবৃতিও সমর্থন করতে অস্বীকার করেছে. মস্কো ও বিজিংয়ের ভয় ছিল যে, তা আগ্রাসনী হস্তক্ষেপের আবাহনী স্বরূপ হতে পারে, যা মনে করিয়ে দেয় লিবিয়ার ঘটনাবলির কথা, - লিখেছে “নিউ-ইয়র্ক টাইমস" পত্রিকা. এ ধরণের উদ্বেগ নিরাপত্তা পরিষদের অন্যান্য সদস্য দেশও প্রকাশ করেছে, সেই সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র, ভারত এবং ব্রেজিলও.