বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হাসিনা ওয়াজেদ ব্যাপক ধর্মঘটের নিন্দে করেছেন, যার দরুণ রবিবার দেশের রাজধানী ঢাকা শহর অচলাবস্থায় এসে পড়েছিল. আন্দোলনকারীরা সংবিধানে সংশোধন আনা সম্পর্কে সরকারের পরিকল্পনার বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করছে, যে ধারা অনুযায়ী নির্বাচনের প্রতি নজর রাখার দায়িত্ব দেওয়া হয় পার্টি-বহির্ভূত পর্যবেক্ষকদের উপর, যাদের নেতা হিসেবে সাধারণত নিযুক্ত করা হয় প্রাক্তন আইনমন্ত্রীকে, জানিয়েছে “অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস” সংবাদ এজেন্সি. হাসিনা ওয়াজেদ বলেন, “আমরা পার্লামেন্টে বিরোধীপক্ষের সাথে এ সংশোধন নিয়ে আলোচনা করতে প্রস্তুত”. তিনি তাছাড়া জোর দিয়ে বলেন যে, “ধর্মঘট ও হিংসা সমস্যা মীমাংসায় সাহায্য করবে না”. প্রতিবাদ আন্দোলনের ফলে ঢাকায় বন্ধ হয়েছিল স্কুল ও দোকান-পাট, জন-পরিবহণ ব্যবস্থা কাজ করছিল না. স্থানীয় প্রচার মাধ্যম জানাচ্ছে যে, ধর্মঘটকারীরা ১১টি বাস পুড়িয়ে দিয়েছে. হতাহত এড়ানো সম্ভব হয়েছে.