ভারত ও পাকিস্তান বিগত তিন বছরে এই প্রথম সিয়াচেন হিমবাহ এলাকার নিঃসামরিকীকরণ সম্বন্ধে সমঝোতায় আসার চেষ্টা করেছে. হিমালয়ের এ হিমবাহটি কাশ্মীরে অবস্থিত এবং বিতর্কমূলক এলাকা. দু দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা দিল্লিতে দু দিনের আলাপ-আলোচনা শুরু করেছে. ৬ হাজার মিটারেরও বেশি উচ্চতায় অবস্থিত এ হিমবাহের জন্য ১৯৮৪ সালে দু দেশের মাঝে সামরিক সঙ্ঘর্ষ হয়েছিল. অগ্নি সংবরণের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল ২০০৩ সালে. কিন্তু হিমবাহের এলাকায় সৈন্যবাহিনী হ্রাসের জন্য সমঝোতায় আসার চেষ্টা এখনও পর্যন্ত সফল হয় নি. সামরিক বিশেষজ্ঞরা নির্জন এই উঁচু পাহাড়ী হিমবাহের এলাকার রণনৈতিক গুরুত্ব সম্পর্কে সন্দেহ প্রকাশ করছেন. ১৯৮৪ সাল থেকে এই হিমবাহের এলাকায় ভারত ও পাকিস্তানের সৈন্য সংখ্যা বিভিন্ন সময়ে ছিল ১০ থেকে ২০ হাজার পর্যন্ত.