ফ্রান্সের দোভিলে “বৃহত্ আট” শীর্ষ সাক্ষাতের শেষ দিনে আলোচনার কেন্দ্রস্থলে থাকবে আফ্রিকার সাথে শরিকানা বিকাশের বিষয়টি. বিশেষ অতিথি হিসেবে এ সাক্ষাতে আমন্ত্রণ করা হয়েছে নাইজেরিয়া, সেনেগাল, ইথিওপিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র ও কোট-ডি’ভুয়ারের নেতাদের. এর প্রাক্কালে “বৃহত্ আট” দেশের নেতারা উত্তর আফ্রিকার বিগত কয়েক মাসের ঘটনাবলি সম্পর্কে দৃষ্টিভঙ্গী প্রকাশ করেন. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভের শরিক বৃহত্ আটটি দেশের নেতারা লিবিয়ার পরিস্থিতির মীমাংসায় রাশিয়ার নেতাকে মধ্যস্থ হওয়ার অনুরোধ করেন. ইউরোপের দেশগুলি ঘোষণা করেছে যে, তারা বর্তমান আর্থিক সমস্যাবলির বিরুদ্ধে চূড়ান্ত সংগ্রাম করতে চায়. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাজেটের ঘাটতি হ্রাসের স্পষ্ট ও আস্থাজনক নীতির প্রতিশ্রুতি দিয়েছে. আটটি দেশ জানায় যে, বিশ্ব অর্থনীতির সজীবতা শক্তি সঞ্চয় করছে. এমন পরিস্থিতিতে তারা রাষ্ট্রীয় আর্থিক ব্যবস্থার স্থিতিশীলতা সুদৃঢ় করার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করতে চায়. একই সঙ্গে, “বৃহত্ আট” দেশের নেতারা আরব জগতের দেশগুলিকে সাহায্য করতেও অস্বীকার করেন নি, যেখানে গণতান্ত্রিক বিপ্লব ঘটেছে. গ্রেট-বৃটেনের প্রধানমন্ত্রী ক্যামেরন উত্তর আফ্রিকা ও নিকট প্রাচ্যের দেশগুলিকে “বৃহত্ আট” দেশগুলির সমর্থনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, যেখানে জনসাধারণ স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করছে. জাপানের প্রধানমন্ত্রী নাওতো কান “ফুকুসিমা-১” পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রে দুর্ঘটনার কুপরিণতি দূর করার জন্য টোকিওর দ্বারা গৃহীত ব্যবস্থাবলির কথা বর্ণনা করেন. নাওতো কান পারমাণবিক নিরাপত্তার বিশ্ব মান আরও কঠোর করার এবং জাতীয় নিয়ন্ত্রণ বিভাগগুলির সমন্বয় সুদৃঢ় করার আহ্বান জানান. ফেডারেল জার্মানির চ্যান্সেলার আঙ্গেলা মের্কেল, পারমাণবিক বিদ্যুত্শক্তির ভবিষ্যত্ যাঁর জন্য রাজনৈতিক প্রশ্ন হয়ে উঠেছে, পারমাণবিক নিরাপত্তার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার উল্লেখযোগ্য অগ্রগতির কথা বলেন. শুক্রবার, পারমাণবিক নিরাপত্তার প্রশ্ন জাপানের প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করবেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ. এই “আটটি” দেশের নেতারা ইন্টারনেট ব্যবসা ক্ষেত্রের মহারথী - “ফেসবুক” সামাজিক নেটওয়ার্কের নেতা মার্ক সুকেরবার্গ এবং “গুগলের” নেতা এরিক শ্মিড্টের সাথে সাক্ষাত্ করেন. তাঁরা ইন্টারনেটে ব্যক্তিগত জীবনের স্বাধীনতা ও তার সুরক্ষা এবং কপিরাইটের মাঝে ভারসাম্য অর্জনের সম্ভাবনা আলোচনা করেন. নিজের “টুইটারে” মেদভেদেভ এ সাক্ষাতের ফলাফলের খতিয়ান টানেন এভাবে, “নেটওয়ার্ক হওয়া উচিত স্বাধীন, আর কপিরাইট – রক্ষা করা দরকার নতুনভাবে”. শীর্ষ সাক্ষাতে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতিও আলোচিত হয়েছে. শীর্ষ সাক্ষাতে অংশগ্রহণকারীদের বেশির ভাগ প্রার্থী হিসেবে ক্রিস্টিন লাগার্দ-কে সমর্থন করেন. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি বলেন যে, তহবিলের নেতৃস্থানীয় পদে উন্নয়নশীল অর্থনীতির দেশগুলির প্রতিনিধিদের উপস্থিতি বাড়ানো উচিত্.