আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধানকে অবশ্যই ইউরোপের নাগরিক হতে হবে এই অলিখিত পুরনো হয়ে যাওয়া ঐতিহ্যের অবসান করা প্রয়োজন. এই বিষয়ে ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন ও দক্ষিণ আফ্রিকার আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের কার্যকরী প্রধানেরা মঙ্গলবারে ঘোষণা করেছেন. তাঁদের মতে, এই ধরনের মুখে না বলা অভ্যাস তহবিলের আইন সঙ্গত হওয়াকেই নষ্ট করে.

    ব্রিকস দেশ গুলি খুবই উদ্বিগ্ন হয়েছে উচ্চপদস্থ সরকারি লোকেদের ঘোষণাতে যে, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধান অবশ্যই ইউরোপের নাগরিক হতে বাধ্য. স্বচ্ছতার নীতি, প্রতিযোগিতা ও প্রার্থীদের কৃতিত্বকে অস্বীকার করা চলতে পারে না, এই কথা বলে তাঁরা তাঁদের তহবিলের ইউরোপীয় সহকর্মীদের অভিযোগ করেছেন.

    আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়াতে সক্রিয় ভাবে প্রভাব বিস্তারের অধিকার অর্জনের জন্য স্বাভাবিক প্রতিযোগিতা চলছে. এই ভাবেই ব্রিকস দেশ গুলির অবস্থান সম্বন্ধে মন্তব্য করে রেডিও রাশিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে রাশিয়ার লোকসভার অর্থনৈতিক রাজনীতি ও ব্যবসায়ী পরিষদের সহ সভাপতি ভ্লাদিমির গলভনিওভ বলেছেন

    ব্রিকস দেশ গুলি এই রকমের অবস্থান নেওয়ার অধিকার রাখে. তাদের সবচেয়ে দ্রুত উন্নতিশীল অর্থনীতি, আর, অবশ্যই, তারা চাইবে, যাতে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধান নির্বাচনের ক্ষেত্রে তাদের অংশগ্রহণে এটা প্রতিফলিত হয়. যদি তাঁদের প্রতিনিধি বা এশিয় প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রতিনিধি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধান হন, তবে তাঁর পক্ষেই তাঁদের স্বার্থের কথা মাথায় রেখে ন্যায্য সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব হবে. আর আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের আর্থিক ক্ষমতাও বিপুল ও এমনকি ব্রিকস দেশ গুলির রাজনৈতিক ভারও তা বাড়াতে পারে.

    এই বেসরকারি ক্লাবের দেশ গুলি অর্থনৈতিক সঙ্কট খুব কমই ক্ষতি স্বীকার করে পার হতে পারছে, যা উন্নত দেশগুলিতেই বেশী করে হয়েছে. আর এটা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সংশোধনের পক্ষে আরও একটি যুক্তি, যা বিশ্ব অর্থনীতিতে ব্রিকস দেশ গুলির ক্রমবর্ধমান ভূমিকাকেই প্রতিফলিত করা উচিত্, এই কথা মনে করেন আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক মূল্যায়ণ ইনস্টিটিউটের ডিরেক্টর ইভগেনি মিনচেঙ্কো. প্রসঙ্গতঃ বিশেষজ্ঞ মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধান নির্বাচন সংক্রান্ত পরিশোধনের প্রয়োজন অনেক দিন ধরেই হয়েছে

    আসলে, ২০০৭ সালে যখন ডোমিনিক স্ত্রস কান কে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধান হিসাবে নির্বাচিত করা হয়েছিল, তখনই খুব বড় স্ক্যাণ্ডাল হয়েছিল. ইউরোপের নাগরিক প্রধান নিয়ন্ত্রক হোক আর তার প্রথম উপ প্রধান আমেরিকার লোক, এই মতের অনেকেই বিপক্ষে মত দিয়েছিলেন. আর আসলেই এই বিশাল স্ক্যাণ্ডালের পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল যে, এটা শেষ বার, যখন এই ধরনের প্রার্থী পদের আগে থেকেই ঠিক করা থাকবে. আর এই ধরনের সিদ্ধান্ত এর পর থেকে নেওয়া হবে শুধু পেশাদারিত্বের উপরে নির্ভর করেই. বাস্তবে ব্রিকস দেশ গুলির প্রতিনিধিরা এই বারে মনে করিয়ে দিয়েছেন সেই বেসরকারি সিদ্ধান্তকেই.

    অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংস্থায় ও এই বিষয় নিয়ে নিজে থেকেই মনে করা হয়েছে. এই সংস্থাকে প্রায়ই ধনী দেশের ক্লাব বলা হয়ে থাকে, কারণ যে, তাতে বেশীর ভাগ ইউরোপীয় সংঘের উন্নত দেশ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও অস্ট্রেলিয়া রয়েছে. এই সংস্থার সদস্য দেশ গুলিও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সদস্যদের আহ্বান করেছেন ইউরোপের নাগরিক নন এমন ব্যক্তিকে ডিরেক্টর পদে নির্বাচনের জন্য, যদিও তারা ঘোষণা করেছেন যে, ফরাসী অর্থমন্ত্রী ক্রিস্টিন লাগার্দ একজন যোগ্য প্রার্থী.

    তিনি ছাড়া সম্ভাব্য পদপ্রার্থী হতে পারেন তুরস্কের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী কেমাল দেরভেশ, ইজরায়েল, জার্মানী ও মেক্সিকোর রাষ্ট্রীয় ব্যাঙ্কের প্রধানেরা – স্ট্যানলি ফিশার, অ্যাক্সেল ওয়েবার এবং আগুস্টিন কার্সস্টেনস. স্বাধীন রাষ্ট্রসমূহের দেশ গুলি থেকেও নিজেদের পক্ষ থেকে প্রার্থী হিসাবে প্রস্তাব করা হয়েছে কাজাখস্থানের জাতীয় ব্যাঙ্কের প্রধান গ্রিগোরী মারচেঙ্কোর নাম. তার কাছে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশ গুলি একক প্রার্থী পেশ করার জন্য একে অপরের সাথে সক্রিয় ভাবে আড়াআড়ি বৈঠক চালাচ্ছে. লাতিন আমেরিকার দক্ষিণের সর্বজনীন বাজার সংগঠনও এই কথা ভুলতে রাজী নয় যে, তাদের যাওয়া আসার কূটনীতির ফলে আরও একজনের উপাধিকে এই আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধান পদের জন্য আসন্ন নির্বাচনের প্রার্থী তালিকার ছোট সংস্করণে দেখতে পাওয়া যাবে. এই প্রসঙ্গে মন্তব্যে উল্লেখ করা হচ্ছে যে, এখানে এশিয়া বা লাতিন আমেরিকা বাসী লোককে ইউরোপ বা আমেরিকার লোকের প্রতিপক্ষ হিসাবে বসানোর কথা হচ্ছে না. আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধানের পদ নির্বাচনের পদ্ধতিই এই তহবিলের সংস্কারে একটি অন্যতম স্বচ্ছতা সংক্রান্ত দিক চিহ্ন হতে বাধ্য. যার স্বপক্ষে অর্থনৈতিক ভাবে বড় কুড়িটি দেশের নেতারাই বলেছেন. আশা করা হচ্ছে যে, এই দৃষ্টিকোণ থেকেই আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধান নির্বাচনের প্রসঙ্গ বেসরকারি ভাবে বড় আট দেশের শীর্ষ বৈঠকে আলোচিত হবে. এই সম্বন্ধে বৃহস্পতিবারে ফ্রান্সের দোভিল শহরে এই বৈঠক শুরু হওয়ার আগে ঘোষণা করেছেন রুশ রাষ্ট্রপতির সহকারী আর্কাদি দ্ভরকোভিচ.