কসঙ্গে রাশিয়ার দুটি শহরে মস্কো ও চেলিয়াবিনস্কে শুরু হয়েছে স্কুল পড়ুয়াদের মাদক দ্রব্যের প্রতি আসক্তি পরীক্ষা. এই কাজ একেবারেই স্বেচ্ছায় করতে বলা হয়েছে, এই পরীক্ষায় বেশ কয়েকটি স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা নিজেরাই অংশ নিতে চেয়েছে. রাশিয়ার মাদক প্রতিরোধ পরিষদে এর জন্য পদ্ধতি তৈরী করা হয়েছে. এই বিষয়ে রুশ রাষ্ট্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রণ সংস্থার প্রধান ও এই পরিষদের সভাপতি ভিক্তর ইভানভ "রেডিও রাশিয়াকে" ব্যাখ্যা করে বলেছেন

    স্কুল ও কলেজের পড়ুয়াদের মাদক ব্যবহার নিয়ে পরীক্ষা আরও নতুন সব জায়গায় করা শুরু হয়েছে. মস্কোতে শহরের দক্ষিণ পূর্বের একটি স্কুলের উঁচু ক্লাসের ৬৫ জন ছাত্রছাত্রী প্রথমে এই পরীক্ষা করতে সম্মত হয়েছে. এই পরীক্ষার জন্য স্বেচ্ছায় অংশ নেওয়া হয়েছে. এর জন্য বাচ্চারা ও আরও বেশী করে তাদের বাবা মায়েদের সম্মতি চাওয়া হয়েছিল. চিকিত্সকদের সঙ্গে স্কুলে এসেছিলেন মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞরা, যাঁরা উঁচু ক্লাসের ছেলেমেয়েদের মধ্যে একটা প্রশ্নোত্তর করার ব্যবস্থা করেছিলেন. প্রসঙ্গতঃ রাশিয়া রাষ্ট্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রণ সংস্থার প্রধান ভিক্তর ইভানভ বিশ্বাস করেন যে, এই নিয়ে সাংবাদিকদের ডেকে বিশেষ ধরনের কোন পরীক্ষার ব্যবস্থা করার দরকার নেই. দেশের বহু অঞ্চলেই স্কুলের ছেলেমেয়েদের মধ্যে মাদকাসক্তি সংক্রান্ত পরীক্ষা করা হচ্ছে বহুদিন ধরেই ও অতিরিক্ত মনোযোগ আকর্ষণ না করেই:

    "আমাদের মতে, এটা স্কুলের ছেলেমেয়েদের বার্ষিক শরীর পরীক্ষার সময়েই একসাথে করে ফেলা যায়. এটা সেই ধরনের শরীর পরীক্ষা, যা শরীরের জৈব পদার্থের পরীক্ষা করে দেখা হয়ে থাকে. আর এটাই যথেষ্ট. এর জন্য আলাদা করে কোন শো করার দরকার নেই. অন্য ব্যাপার হল যে, আমাদের দেশের আইন অনুযায়ী স্বাস্থ্য ও শিক্ষার বিষয়টি দেশের আলাদা রাজ্য গুলির দায়িত্বের মধ্যে পড়ে, অর্থাত্ এটা রাজ্য গুলির করার কথা. তাই, এই ধরনের সম্ভাবনা দেখে বলা যেতে পারে যে, প্রত্যেক জায়গাতেই সেখানের সম্ভাব্য ব্যবস্থা অনুযায়ী এই কাজ করা দরকার".

    রাশিয়াতে স্কুল পড়ুয়া ও উচ্চ শিক্ষার প্রতিষ্ঠান গুলিতে পড়া ছাত্রছাত্রীদের আবশ্যিক মাদকাসক্তির পরীক্ষা সম্বন্ধে এপ্রিল মাসেই রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ ঘোষণা করেছিলেন. রাষ্ট্রীয় সভার অধিবেশনে তিনি উল্লেখ করেছিলেন যে, বর্তমানে রাশিয়াতে খুব কম করে হলেও ২৫ লক্ষ মাদকাসক্ত লেক রয়েছে. তাদের মধ্যে শতকরা ৭০ ভাগের বয়স তিরিশের কম. রাষ্ট্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রণ সংস্থার পক্ষে সম্ভব হয়েছে ধূমপানের জন্য বিশেষ ধরনের মাদকের মিশ্রণ ব্যবহার নিষিদ্ধ করার, আন্তর্জাতিক স্তরে রাশিয়া প্রস্তাব করেছে হেরোইনের কারবারকে আন্তর্জাতিক বিপদ বলে স্বীকার করতে, লাতিন আমেরিকা থেকে কোকেইন সরবরাহের সঙ্গে মোকাবিলাতেও সাফল্য পাওয়া গিয়েছে.

0     দেশের ভিতরে সংস্থা প্রস্তাব করেছে কোডেইন পদার্থ সমেত জিনিসের বিক্রয় হয় বন্ধ অথবা ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী শুধু বিক্রয় করতে দেওয়ার. এই পদার্থ থেকে ঘরোয়া ভাবে ডেজামরফিন নামে মাদক তৈরী করা হয়ে থাকে, তার একটি ডোসেজের দাম ১০০ রুবলের কম. দুই বছরের বেশী যে সমস্ত মাদকাসক্ত ডেজামরফিন ব্যবহার করে, তারা আর বেঁচে থাকে না, আর প্রথম ইঞ্জেকশনের পর থেকেই আসক্তি জন্মায়. ভিক্তর ইভানভ আশা করেছেন যে, আগামী কয়েক মাসেই দেশে কোডেইন সমেত জিনিসের কারবার কমানো সম্ভব হবে. তাঁর কথামতো, প্রতি বছরেই এই জিনিসের বিক্রী দ্বিগুণ হয়েছে, ব্যবহারও দ্বিগুণ এবং আসলে মাদকের ব্যবহারই বাড়ছে. কঠোর নিয়ন্ত্রণ করার জন্য প্রশাসনের সিদ্ধান্তের প্রয়োজন. বিশেষ কমিটি এর মধ্যেই তৈরী হয়েছে, আর সকলেই তাদের কাছ থেকে বাস্তব ফল আশা করছে.